Breaking News

প্রতিবেশী দেশগুলোর অ-মুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দিচ্ছে ভারত

বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে যাওয়া অ-মুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করল ভারত। এই মর্মে সোমবার একটি নির্দেশিকা জারি করেছে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণলয়। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) কার্যকর না হওয়ায় ‘নাগরিকত্ব আইন, ১৯৫৫’-এর আওতায় এই পদক্ষেপ নিচ্ছে মোদি সরকার।

জানা গিয়েছে, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে যাওয়া হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ও জৈন সম্প্রদায়ের শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। গুজরাটের মেহসানা ও আনন্দ জেলায় বসবাসকারী অ-মুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে জেলাশাসকদের। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, ২০১৯ সালের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বা সিএএ-র প্রয়োগ না করে ঘুরিয়ে এই নাগরিকত্ব প্রদান করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছর থেকেই এই প্রক্রিয়া শুরু করেছে মোদি সরকার। এই মর্মে গুজরাট, রাজস্থান, ছত্তিশগড়, হরিয়ানা ও পাঞ্জাবের মোট ১৩টি জেলায় বসবাসরত অ-মুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব পেতে আবেদন জানানোর নির্দেশ দিয়েছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। সেখানে অবিলম্বে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন এবং ২০০৯ সালের নিয়ম অনুযায়ী এই নির্দেশকে কার্যকর করতে বলা হয়। কারণ, ২০১৯ সালে আইনে পরিণত হলেও, এখনও পর্যন্ত সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন সংক্রান্ত নিয়ম প্রণয়ন করেনি কেন্দ্র।

প্রসঙ্গত, প্রতিবেশী মুসলিম দেশগুলো থেকে যাওয়া সংখ্যালঘুদের জন্য তৈরি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন এখনও বলবৎ করা হয়নি। ফলে এই গোটা প্রক্রিয়া নিয়ে কিছুটা ধোঁয়াশা রয়েছে। এখনই কার্যকর হচ্ছে না সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ। মোদি সরকারের আবেদনে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সিএএ কার্যকর করার সময়সীমা বৃদ্ধি করেছে রাজ্যসভা। ৯ জানুয়ারি, ২০২৩ পর্যন্ত তা বাড়িয়েছে লোকসভার সংসদীয় কমিটি।

উল্লেখ্য, নাগরিকপঞ্জি আর সিএএ নিয়ে অনেকদিন ধরেই প্রতিবাদ জানাচ্ছে ভারতের বুদ্ধিজীবী মহল। প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে বেঙ্গালুরু পুলিশের হাতে আটক হয়েছিলেন ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহ। বলিউডে যেমন অনুরাগ কাশ্যপ, স্বরা ভাস্কররা আওয়াজ তুলেছেন, তেমনই বাংলা থেকে অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন, সোহাগ সেন, অনির্বাণ ভট্টাচার্য, ঋদ্ধি সেন পথে নেমে প্রতিবাদও জানিয়েছেন। সব মিলিয়ে ধর্মের ভিত্তিতে শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেয়া নিয়ে তুমুল প্রতিবাদ হয়েছে দেশজুড়ে। সূত্র: টাইমস নাউ।

Check Also

পলাশীর সেনাপতি ইয়ারলতিফ, আর পঁচাত্তরের ইয়ারলতিফ হচ্ছে জিয়া: ওবায়দুল কাদের

যশোর-খুলনা মহাসড়কের দূরাবস্থা, খানাখন্দ ভরা রাস্তা ঠিক করতে একমাসের আল্টিমেটাম দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু …

Leave a Reply

Your email address will not be published.