Breaking News

সাংবাদিকদের সম্মানে বিএনপির নৈশভোজে পুলিশের বাঁধা

ময়মনসিংহে সাংবাদিকদের সম্মানে বিএনপির প্রীতি সম্মিলনী ও নৈশভোজে পুলিশের পক্ষ থেকে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অনুষ্ঠানের আয়োজক ও অতিথিদের মধ্যে মিশ্রপ্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টায় নগরীর চরপাড়া এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে সাংবাদিকদের সম্মানে এই নৈশভোজের আয়োজন করে বিএনপির বিভাগীয় টিম।

পুলিশের বাঁধার কারণে সাংবাদিকদের সাথে প্রীতি সম্মিলনী ও নৈশভোজ সুন্দর ভাবে করতে পারেনি বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি নেতারা। এ জন্য দলটির পক্ষ থেকে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করা হয়।

তবে পুুলিশের ভাষ্য উল্টো। তাঁরা বলেছেন, বিএনপি সাংবাদিকদের দাওয়াত দিয়ে রেস্টুরেন্টে খাওয়াবে এ জন্য তারা কোন অনুমতি চায়নি বা অনুমতি দেওয়ারও কিছু নেই। এখন তারা পুলিশের বাঁধার নামে উল্টাপাল্টা বলছে- বলে দাবি করেন কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ।

বিএনপি নেতারা জানান, গত গত ১৫ অক্টোবর শত বাঁধা উপেক্ষা করে বিএনপির বিভাগীয় গনসমাবেশ সফল হয়েছে। ওই সমাবেশের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে রোদে পুড়ে সাংবাদিকরা অনেক কষ্ট করেছেন। এ জন্য দলের পক্ষ থেকে তাদের প্রতি কৃজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাতে এই নৈশভোজ ও প্রীতি সম্মিলনীর আয়োজন করা হয়েছিল।

কিন্তু পুলিশ অনুষ্ঠানে বাঁধা দিয়ে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষকে খাবার বিতরণ ও আয়োজনে নিষেধ করে বলেও অভিযোগ করেন অনুষ্ঠান আয়োজক টিমের প্রধান ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। পরে বাইরে থেকে খাবার এনে অতিথিদের প্যাকেট খাবার দেওয়া হয় উলে­খ করেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এই বিএনপি নেতা। এবিষয়ে সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, সামাজিক অনুষ্ঠানে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা নিন্দনীয় এবং সাংবিধানিক অধিকারে নির্লজ্জ হস্থক্ষেপ। এতে প্রমাণ হয় সরকার এতটাই জনবিচ্ছিন্ন যে- তারা সাংবাদিকদের প্রীতি সম্মিলনীর মত নিরীহ অনুষ্ঠানকেও ভয় পায়।
এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে দুঃখ প্রকাশ করে এই বিএনপি নেতা আরও বলেন, এধরনের ঘটনায় রাষ্ট্র ব্যবস্থার চরম কর্তৃত্ববাদী চরিত্রের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। এতেই বুঝা যায় দেশের পরিস্থিতি। এই অবস্থায় দেশের শ্বাঃসরুদ্ধকর পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে আমরা সাংবাদিকদের সহযোগীতা চাই। এ সময় বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড.ওয়ারেস আলী মামুন, ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির অহবায়ক অধ্যাপক একেএম শফিকুল ইসলাম, দক্ষিন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন বাবলু, অধ্যাপক শেখ আমজাদ আলী, উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদার, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট নূরুল হক’সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Check Also

রোজ খেলা দেখি : প্রধানমন্ত্রী

প্রতিযোগিতার মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ একদিন বিশ্বে খেলাধুলায় আরও অবস্থান তৈরি করবো জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, …

Leave a Reply

Your email address will not be published.