‘পুলিশের নির্যাতনে’ নিহত ব্যবসায়ীর লাশ কবর থেকে উত্তোলন

6

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলায় কবর থেকে উত্তোলন করা হচ্ছে ব্যবসায়ী সাইদুর রহমানের মরদেহ। ছবি : এনটিভি
জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার ব্যবসায়ী সাইদুর রহমানের মরদেহ পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। প্রথম ময়নাতদন্তে মৃত্যুর কারণ উল্লেখ না থাকায় আপত্তি জানায় সাইদুরের পরিবার। তাই আদালতের নির্দেশে আজ শনিবার সকালে তাঁর মরদেহ কবর থেকে তোলা হয়।

লাশ উত্তোলনের সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন জয়পুরহাট জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তারিক-উজ-জামান, সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ডা. সরদার রাশেদ মোবারক, কালাই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন কুমারসহ আরো অনেকেই।

উত্তোলনের পর সাইদুর রহমানের মরদেহ পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য

রংপুর মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে পাঠানো হয়েছে। ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. আবদুল জলিলের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড এই ময়নাতদন্ত করবে বলে জানা যায়।

সাইদুরের পরিবার অভিযোগ করে, গত ৯ অক্টোবর ভোরে জেলার হারুঞ্জা গ্রামে  ভাতিজাকে ধরতে গিয়ে চাচা সাইদুরকে নির্যাতন করে পুলিশ। আর পুলিশের নির্যাতনেই মারা যান সাইদুর রহমান। এ ঘটনায় সাইদুরের বাবা বাদী হয়ে দুজন কর্মকর্তাসহ চার পুলিশ সদস্যকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন।

তাঁরা অভিযোগ করা সত্ত্বেও প্রথম ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে মৃত্যুর কারণ উল্লেখ করা হয়নি। তাই সাইদুরের পরিবারের আপত্তি জানানোর পরিপ্রেক্ষিতে গত ৮ নভেম্বর মরদেহ তুলতে ও পুনরায় ময়নাতদন্ত করতে আদেশ দেন আদালত।