পুকুরে মিলল নিখোঁজ রিকশাচালকের লাশ

8

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে নিখোঁজের একদিন পর ফারুক নামের এক রিকশাচালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার বিকেল ৩টার দিকে স্থানীয়দের তথ্যের ভিত্তিতে একটি পুকুর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

ফারুকের বড় ভাই ইছহাক মিয়া জানান, গতকাল শুক্রবার ভোর সাড়ে ৬টায় প্রতিদিনের মতো ফারুক রিকশা নিয়ে বের হন। কিন্তু বের হওয়ার আধ ঘণ্টা পর থেকেই ফারুককে মোবাইলে পাওয়া যাচ্ছিল না। সারা দিন খোঁজাখুঁজির পর রাতে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। আজ বিকেল ৩টায় তালশহর সড়কের সোনারামপুরের বালুর মাঠের পুকুরে একটি লাশ পড়ে থাকার খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে আশুগঞ্জ থানার পুলিশ। পরে থানায় এসে স্বজনরা লাশ শনাক্ত করেন।

ফারুকের বাবা কাশেম মিয়া খুনিদের শাস্তির দাবি করে বলেন, ‘আমার সন্তানকে যারা খুন করেছে, তাদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।’

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বদরুল আলম তালুকদার বলেন, ‘ফারুকের নিখোঁজ এবং পরবর্তীতে তাঁকে খুন করার পেছনে কারা জড়িত তা তদন্ত করে বের করা হবে। এরই মধ্যে পুলিশ এই তদন্ত শুরু করেছে।’ দ্রুত খুনিদের চিহ্নিত করে আটক করতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন এই কর্মকর্তা।

ফারুকের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ফারুকের গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার শিবপুরে গ্রামে।