Breaking News
Home / ইন্ডিয়া / বাবাকে হত্যার পর মাকে জখম করল ভারতীয় নৌ সেনা

বাবাকে হত্যার পর মাকে জখম করল ভারতীয় নৌ সেনা

ভারতের নৌবাহিনীর এক নাবিক ছুরিকাঘাতে নিজের বাবাকে হত্যার পর তার মাকেও হত্যার চেষ্টা করেছেন।এমন উন্মত্ততার খবর পেয়ে পুলিশ উপস্থিত হলে রান্না ঘরের গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণ ঘটান ওই নাবিক। এতে ১১ পুলিশসহ ১৩ জন আহত হয়েছেন।রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে পূর্ব দিল্লির মধুবিহার এলাকার অজান্তা হাউজিং সোসাইটির একটি ফ্ল্যাটে এ ঘটনা ঘটে। খবর এনডিটিভির

প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার দুপুরে সাবেক নাবিক রাহুল মাতা (৩০) তার বাবা আর্থিক খাতের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আরপি মাতার ওপর ছুরি নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েন। ছেলের উপর্যুপুরি ছুরিকাঘাত থেকে স্বামীকে রক্ষা করার চেষ্টা করেন রেনু মাতা। এ সময় মাকেও হত্যার চেষ্টা করেন রাহুল।

ছেলের হাত থেকে বাঁচার জন্য রেনু চিৎকার করলে তাকে রক্ষায় ছুটে আসেন অজান্তা হাউজিংয়ের নিরাপত্তা কর্মীরা ছুটে আসেন। তারা চতুর্থ তলার ফ্লাটটির দরজা খোলার চেষ্টা করলে তাদের হুমকি দেন রাহুল।

পরে খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এ সময় রাহুল রান্নাঘরে ঢুকে দরজা আটকে দেন। এক পর্যায়ে তিনি রান্নাঘরে থাকা গ্যাসের সিলিন্ডারে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে সিলিন্ডারটি বিস্ফোরিত হয়ে ১১ জন পুলিশ সদস্য, রাহুল নিজে ও এক প্রতিবেদশী দগ্ধ হন।

ঘটনার ব্যাপারে পুলিশের উপকমিশনার ওমবির সিং সংবাদ সংস্থা আইএএনএসকে বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ রাহুলের ফ্ল্যাটে পৌঁছলে তিনি রান্নাঘরে ঢুকে দরজা আটকে দেন।

এরপর রাহুল সিলিন্ডারের ছিপি খুলে গ্যাস বের করে ফেলেন। পুলিশ রান্না ঘরের দরজা ভাঙার চেষ্টা করলে তিনি সিলিন্ডারে আগুন ধরিয়ে দেন বলে জানান ওমবির সিং।

তিনি আরও বলেন, আহত হওয়া সত্ত্বেও পুলিশ কর্মকর্তারা সাহসী ভূমিকা পালন করেন। তারা নৌবাহিনীর সাবেক নাবিক রাহুলকে ধরে ফেলেন। যদি তারা তাকে না ধরতেন তাহলে তিনি অন্যদের মেরে ফেলতেন।

রাহুল মাতার বিরুদ্ধে আগে থেকেই প্রতিবেশীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার এবং নারীদের হয়রানি করার অভিযোগ ছিল। সম্প্রতি সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তাকে ত্যাজ্যপুত্র ঘোষণা করেছিলেন তার বাবা।

Facebook Comments