ওয়াই-ফাইতো আছে প্রধানমন্ত্রী মোদির গ্রামে, কিন্তু টয়লেট…

9

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই পরিষ্কার ভারত গঠনের জন্য যেন উঠেপড়ে নেমেছেন নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু খোদ মোদির নিজের এলাকাতেই সেই স্বচ্ছতার কোনো লক্ষণ নেই।

ভারতের ৭০ কোটি লোক এখনো প্রকাশ্যে বা অনিরাপদ টয়লেটে মল-মূত্র ত্যাগ করে। ‘পৃথিবীর টয়লেটের অবস্থা’ নামের এক রিপোর্টে ওয়াটারএইড এ তথ্য জানিয়েছে। বাস্তবে দেখা গেল, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর এলাকাও এর ব্যতিক্রম নয়।

সম্প্রতি মোদির নিজ এলাকা গুজরাটের ভাদগর সফরে গিয়েছিলেন বিবিসির এক সাংবাদিক। সেখানেই তিনি দেখতে পান এলাকায় বিনামূল্যের ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট সেবা রয়েছে। তবে অতি প্রয়োজনীয় টয়লেট নেই।

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরই শুরু হয় ‘স্বচ্ছ ভারত অভিযান’। এই অভিযানের ছোঁয়া গুজরাটে মোদির নিজ এলাকায় কতটুকু লেগেছে, তা সম্প্রতি দেখতে যান প্রিয়াঙ্কা দোবে। সেখানে গিয়ে তিনি দেখেন, ওয়াই-ফাই সুবিধা থাকলেও বেশির ভাগ বাড়িতেই কোনো শৌচাগার নেই।

প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘গ্রামে ঢোকামাত্র আমার স্মার্টফোনে একটি বার্তা আসে। তাতে লেখা- আপনি ভাদগর ওয়াই-ফাই জোনে প্রবেশ করেছেন।’ পরে তিনি জানতে পারেন, সরকারিভাবে সেখানে ওয়াই-ফাই সুবিধা দেওয়া হয়েছে।

এরপর ওই নারী সাংবাদিক টয়লেটের খোঁজ করেন। প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘টয়লেটের কথা জিজ্ঞাসা করা মাত্রই ভিন্ন রূপ সামনে চলে আসে। আমাকে কয়েক স্কুলছাত্রী পাশের একটি খোলা জায়গায় নিয়ে যায়।’

ভারতের ৭০ কোটি টয়লেটহীন মানুষের ব্যতিক্রম নয় মোদির ওই গ্রাম। প্রাকৃতিক কাজ সম্পন্ন করার জন্য সেখানকার নারী ও পুরুষরা এখনো দুটি খোলা মাঠের ওপর নির্ভরশীল। সূত্র : বিবিসি