ধর্ম অবমাননার দায়ে আদালত কক্ষেই এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা

246

এর আগেও দেশটিতে ধর্মদ্রোহের অভিযোগে এ ধরণের ঘটনা ঘটেছে। আল জাজিরা, ডন
[৩] বুধবার জেলা আদালতে ব্লাসফেমি মা’মলার শুনানি চলাকালে তাহির আহমেদ নাসিমকে ৬টি গুলি করা হয়। পুলিশ কর্মকর্তা আল জাজিরাকে বলেন, ‘এই ঘটনা যে ঘটিয়েছে, সে সঙ্গে সঙ্গে দোষ স্বীকার করে নিয়েছে। সে জানিয়েছে ধর্ম অবমাননার (ব্লাসফেমি) জন্যই তাহিরকে সে হত্যা করেছে।

[৪] ২০১৮ সাল থেকে পুলিশ হেফাজতে ছিলো নাসিম। তিনি নিজেকে নবী দাবী করেছিলেন। যা পাকিস্তানের ব্লাসফেমি আইনে মৃত্যুদণ্ড যোগ্য অ’পরাধ। নাসিমের বিচারও সেদিকে অগ্রসর হচ্ছিলো। কারণ তিনি আদালতেও নিজেকে নবী দাবি রেছিলেন।
[৫] ১৯৯০ সাল থেকে ধর্মবিরোধিতার অভিযোগে পাকিস্তানে ৭৭ জনকে হত্যা করা হয়েছে। শুধু অভিযুক্তই নয়, হ’ত্যার শিকার হয়েছেন অভিযুক্ত পরিবার, আইনজীবি, বিচারক এমনকি পক্ষ নেওয়া সাংবাদিকও। সম্পাদনা: ইকবাল খান