মিয়ানমারের ৩০ সেনাসদস্যকে হত্যা করেছে দেশের জনগণ

198

জান্তা বিরোধী আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর ৩০ সদস্য নিহত হয়েছেন। দেশটির সাগাইং অঞ্চলে হওয়া সংঘর্ষে এই ঘটনা ঘটে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) এক প্রতিদেনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তাসংস্থা এএনআই।

জান্তাবিরোধী প্রতিরোধ যোদ্ধাদের নিয়ে গঠিত পিপলস ডিফেন্স ফোর্স (পিডিএফ)-এর সদস্যদের বরাত দিয়ে রেডিও ফ্রি এশিয়া জানিয়েছে, সেনারা সাগাইং অঞ্চলে অভিযান শুরু করলে প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ ঘটে। এদিনের সংঘর্ষস্থল সাগাইং অঞ্চলটি মান্দালাই শহরের ২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ইরাবতী নদীর তীরে অবস্থিত।
পিপলস ডিফেন্স ফোর্সের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, সোমবার সকালে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পেল শহরের বাইরে সেনাদের কনভয় ল্যান্ডমাইনের শিকার হলে একজন কমান্ডারসহ ৩০ সেনা নিহত হয়।

তিনি জানান, সরকারি বাহিনীর একজন সিনিয়র কমান্ডার অভিযান চালাতে এদিকে আসার কথা বলেছিলেন। সে অনুযায়ী সেনাদের ওই কনভয়ের জন্য রবিবার থেকেই অপেক্ষা করছিলেন তারা।

২০২১ সালের ১ ফেব্রয়ারি রক্তপাতহীন এক অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে অং সন সু চি-র নেতৃত্বাধীন সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। ধরপাকড় চালানো হয় সু চি-র দলের নেতাকর্মীদের ওপর। অন্যদিকে দেশের বিভিন্ন স্থানে জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধ শুরু করে বিদ্রোহীরা। বিদ্রোহীদের বরাত দিয়ে রেডিও ফ্রি এশিয়া জানিয়েছে, শুধু গত সেপ্টেম্বরেই এক হাজার ৫৬০ জন সেনাসদস্য নিহত হয়েছে। জান্তা সরকারের মুখপাত্র জাও মিন তু অবশ্য এমন দাবি নাকচ করে দিয়েছেন।