কারাবন্দী থেকে খালেদা জিয়া এখন গৃহবন্দী : গয়েশ্বর

236

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাবন্দি থেকে এখন গৃহবন্দি হয়েছেন। তাকে মুক্ত করে রাজপথে আনতে পারলেই দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে।
বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব বলেন।

খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত হয়ে কারামুক্ত হলেও দলের চেয়ারপারসনের বর্তমান অবস্থা নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, কারাবন্দি থেকে এখন প্রমোশন হয়েছে, আমাদের নেত্রী এখন গৃহবন্দি। নেত্রী যখন গৃহবন্দি থাকেন আপনার-আমার উচ্ছ্বাস মানায় না।

তিনি বলেন, যে জাতীয় ঐক্য করার জন্য জনগণের প্রাণশক্তি, সেই আকাঙ্ক্ষিত বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ল’ড়াইয়ে যিনি থাকেন, নামেন এবং তাকে এই গৃহের দরজা খুলে রাজপথে আনার ব্যবস্থা যদি করতে পারি, তাহলে মনে করবেন গণতান্ত্রিক আন্দোলন বা গণতন্ত্র উদ্ধারে সিংহভাগ কাজ কিন্তু সম্পন্ন হবে। আমাদের মূল লক্ষ্য কী? এই অন্যা’য়-অত্যাচারে, এই একটা স্বৈরতান্ত্রিক সরকারের হাত থেকে দেশটাকে বাঁচানো, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে রক্ষা করা। এর জন্য একটা জাতীয় ঐক্য দরকার।

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ‘মান-অভিমান’ ভুলে সবাইকে আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানান গয়েশ্বর।

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় জিয়াউর রহমান সমাজকল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, বিএনপির আবদুল আউয়াল খান, আবদুল কাইয়ুম, আনোয়ার হোসেন, দীন মোহাম্মদ কাশেমী, মোহাম্মদ হানিফসহ মারা যাওয়া নেতাদের স্মরণে এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল হয়।

সংগঠনের সভাপতি এম গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন স্বেচ্ছাসেবক দলের ফখরুল ইসলাম রবিন, একেএম আবুল কালাম আজাদ, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আব্দুর রহিম প্রমুখ।