‘ছাত্রাবাস বন্ধ থাকা সত্ত্বেও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা কীভাবে সেখানে অবস্থান করে? ‘

193

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, সিলেটের এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে গণধর্ষণ ঘটনা জাতির বিবেককে নাড়া দিয়েছে। অবিলম্বে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবাইকে গ্রেফতার ও শাস্তির আওতায় আনতে হবে। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রতিবাদ বার্তায় তিনি এ কথা বলেন। কলেজ ছাত্রাবাস বন্ধ থাকা সত্ত্বেও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা কীভাবে সেখানে অবস্থান করে প্রশ্ন তুলে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, এ ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসন দায় এড়াতে পারে না। তাদেরও বিচারের আওতায় আনতে হবে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বামীকে নিয়ে এমসি কলেজে ঘুরতে গিয়ে অন্তত ছয়জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর দ্বারা কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের শিকার হন এক নববধূ। ধর্ষণের ঘটনায় ৬ ছাত্রলীগ কর্মীরসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ওই গৃহবধূর স্বামী।

আসামিরা হলেন এমসি কলেজ ছাত্রলীগের নেতা শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৫), মাহফুজুর রহমান মাসুম (২৫), সাইফুর রহমান (২৮), রবিউল ইসলাম (২৫), অর্জুন লস্কর (২৫) ও তারেকুল ইসলাম তারেক (২৮) । এর মধ্যে রবিউল ও তারেক (২৮) বহিরাগত ছাত্রলীগ কর্মী বলে জানা গেছে।