কুড়িগ্রামে সন্তানের সামনেই মাকে সারা রাত ধরে ধ’র্ষণ

818

কুড়িগ্রামের উলিপুরে সন্তানের সামনেই এক মাকে সারা রাত ধরে ধ’র্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন অভিযোগে চারজনকে গ্রে’প্তার করেছে পুলিশ।

গ্রে’প্তাররা হলেন- উপজেলার তবকপুর ইউপির রাজারঘাট গ্রামের আবু বক্কর, তার সহযোগী একই এলাকার সেফাত উল্লার ছেলে কায়সার আলী, ফকর উদ্দিনের ছেলে সোবহান আলী লিটন ও আবুল হোসেনের ছেলে মমিনুল ইসলাম।
এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন উলিপুর থানার ওসি (তদন্ত) রুহুল আমীন। তিনি বলেন, ‘শনিবার গ্রে’প্তারদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’
এর আগে, গত শুক্রবার রাতে পাঁচজনের বিরুদ্ধে থানায় মা’মলা করেন ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ।

মা’মলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, তিনি এক সন্তানের মা। স্বামীর অনুপস্থিতিতে প্রতিবেশী মোহাম্মদ আলীর ছেলে ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম তাদের বাড়িতে আসতেন এবং তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিতেন। একপর্যায়ে তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সম্পর্ক গড়ে তোলেন রবিউল।
২৫ সেপ্টেম্বর রাতে রবিউল তাকে নতুন করে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে মোবাইল ফোনে ডেকে নেন। এরপর তিনি দেড় বছরের সন্তানকে নিয়ে উলিপুর বাজারে রবিউলের সঙ্গে দেখা করেন।

উলিপুর বাজারে যাওয়ার পর একটি অটোরিকশায় ওই গৃহবধূকে উপজেলার তবকপুর ইউপির রাজারঘাট গ্রামের আবু বক্করের ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে যান রবিউল। সেখানে একটি ঘরে আটকে রেখে তাকে সারা রাত ধরে পালাক্রমে ধ’র্ষণ করে রবিউলের বন্ধু কায়ছার আলী, সোবহান আলী লিটন, মমিনুল ইসলাম। পরদিন সকালে ওই গৃহবধূকে ঘরের মধ্যে একা রেখে তারা পালিয়ে যান।
ওসি রুহুল আমীন বলেন, ‘শুক্রবার রাতে ওই গৃহবধূ মা’মলা করার পর চারজনকে গ্রে’প্তার করা হয়েছে। মা’মলার প্রধান আসা’মি রবিউলকেও গ্রে’প্তারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’
বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ