রাতের ফ্লাইওভারে ভয়ংকর ফাঁদ

85

নগরীর আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার হয়ে উঠেছে নগরবাসীর জন্য আতঙ্কের নাম। প্রতিনিয়তই এখানে ঘটছে ছিনতাই, ডাকাতিসহ নানা অপরাধ। ফ্লাইওভারকেন্দ্রিক এসব অপরাধে অভিযুক্ত এমন সাতজনকে গ্রেপ্তারের পর এমন তথ্য জানিয়েছে পুলিশ।
গত শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে কোতোয়ালি থানাধীন জামিয়াতুল ফালাহ মসজিদ সংলগ্ন মাঠের একটি পরিত্যাক্ত বাসা ও চকবাজার থানাধীন দামপাড়া এলাকা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে একটি দেশীয় এলজি, কাটার, কয়েকটি ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার তরুণ ও যুবকেরা হলেন হৃদয় হোসেন (১৯), শহিদুল ইসলাম মনা (২২), চাঁন মিয়া (২১), হাসান (১৯), আরিফ (১৯), আনিচ (১৯) ও মহসিন উদ্দিন ওরফে টুকু (৩০)।
তোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, অভিযুক্তরা নগরীর বহদ্দারহাট থেকে লালখান বাজার পর্যন্ত বিস্তৃত আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারে ছিনতাই ও ডাকাতিতে জড়িত। তাঁরা মূলত ফ্লাইওভারের বিভিন্ন গার্ডারের স্ল্যাবের কোণায় লুকিয়ে থাকে। পরে সুযোগ বুঝে মানুষের পথ আটকিয়ে টাকা-পয়সা ও মূল্যবান জিনিস ছিনিয়ে নেয়।
ওসি বলেন, পুলিশ আসার খবর পেলে অভিযুক্তরা গার্ডারের পাশে ফাঁকা অংশ দিয়ে পাইপ বেয়ে নিচে নেমে বা ফ্লাইওভারের ওপরে উঠে পালিয়ে যায়।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, গ্রেপ্তারদের মধ্যে হৃদয়, শহিদুল, চাঁন মিয়া, হাসান ও আরিফের বিরুদ্ধে পুরোনো মামলা রয়েছে।
পুলিশ সূত্র জানায়, মুরাদপুর থেকে ইস্পাহানির মোড়ের আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার এবং স্টেশন রোড থেকে কদমতলী ফ্লাইওভারে ছিনতাইকারী চক্রের তৎপরতা বেশি।
২০২০ সালের ১৩ জুলাই নগরীর আখতারুজ্জামান চৌধুরী ফ্লাইওভারের রাস্তা ব্যবহার করে মোটরসাইকেলে করে চান্দগাঁওয়ের বাসায় ফিরছিলেন চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী আরিফ চৌধুরী।

উড়ালসড়কের ২ নম্বর গেট অতিক্রম করার পর হঠাৎ নাইলনের সুতায় বাধা পেয়ে গাড়ি থেকে পড়ে যান তিনি। তখনই অল্পবয়সী দুটি ছেলে সাহায্য চাওয়ার ভান করে তাঁর কাছে আসে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ছেলে দুটি ছুরি দেখিয়ে তাঁর মোবাইল ফোন, টাকা-পয়সা কেড়ে নিয়ে দ্রুত মোটরসাইকেল নিয়ে সটকে পড়েন।
এই ঘটনার পরদিন ১৪ জুলাই একইভাবে উড়ালসড়কে ছিনতাইয়ের ঘটনার শিকার হন ব্যবসায়ী ইমরান চৌধুরী।
ফ্লাইওভারে বেঁধে রাখা নাইলনের মজবুত সুতার টানে হাত ও গলায় জখম হয়ে মারাত্মকভাবে আহত হন মোটরসাইকেলের আরোহীরা। এতে পড়ে গেলে সুযোগ বুঝে সবকিছু কেড়ে নিয়ে চম্পট দেয় অপরাধীরা।
পিপি/জেআর