অন্তঃসত্ত্বা আফগান নারী পুলিশ সদস্যকে হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করল তালেবান

52

অন্তঃসত্ত্বা আফগান নারী পুলিশ সদস্যকে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে নিজেদের সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করেছে তালেবান।এ ব্যাপারে তালেবানের মুখপাত্র জাহিবুল্লাহ মুজাহিদ জানান, “আমরা ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত আছি। আমি নিশ্চিত যে তালেবান তাকে হত্যা করেনি। এ ব্যাপারে আমাদের তদন্ত চলছে।”

তিনি আরও জানান, “বিগত সরকারের অধীনে কাজ করা সবার জন্য সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে তালেবান। তাদের ধারণা ওই নারীকে কোনও ব্যক্তিগত শত্রুতার জেরে হত্যা করা হয়েছে।”উল্লেখ্য, তিন সশস্ত্র ব্যক্তি আফগানিস্তানের একজন নারী পুলিশকে তার নিজ বাসভবনে পরিবারের সদস্যদের সামনে গুলি করে হত্যা করে। তার নাম বানু নিগার। আফগানিস্তানের ‘মধ্য ঘোর’ প্রদেশের রাজধানী ফিরুজকুহতে শনিবার এ ঘটনা ঘটে। সশস্ত্র ব্যক্তিরা তালেবান সদস্য বলে অভিযোগ উঠেছে।

বানু নিগারের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, তালেবানের স্থানীয় নেতৃত্ব এই হত্যাকাণ্ডে নিজেদের সংশ্লিষ্টতা অস্বীকার করে এ ব্যাপারে তদন্তের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

তারা আরও জানিয়েছেন, নিহত পুলিশ সদস্য কারাগারে দায়িত্ব পালন করতেন এবং হত্যাকাণ্ডের সময় তিনি আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, তিনজন বন্দুকধারী ব্যক্তি ওই নারী পুলিশ সদস্যের বাড়িতে তল্লাশি চালায়। এরপর পরিবারের সদস্যদের হাত-পা বেঁধে তাদের সামনেই বানু নিগারকে গুলি করা হয়। একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, হামলাকারীদের আরবিতে কথা বলতে শোনা গেছে।