হত্যা মামলার সাক্ষীকে পিটিয়ে হত্যাচেষ্টা|

62

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় কৃষক বারেক গাজী হত্যা মামলার ৮ নং সাক্ষী বাবুলকে পিটিয়ে জখম করেছে হত্যা মামলার আসামী ইউনুস হাওলাদার ও তাদের লোকজন। রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সাপলেজা আলিস্যার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

আহতকে উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই দিন বাবুল নিজেই বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
জানা গেছে, ২৯ আগস্ট উপজেলার ভাইজোড়া গ্রামে ধানের বীজ চারা নেওয়াকে কেন্দ্র করে কৃষক বারেক গাজীকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে প্রতিপক্ষ ইউনুস হাওলাদার মারধর করে। এতে ঘটনাস্থলেই বারেক গাজী মারা যায়। এ ঘটনায় মৃত ওই কৃষকের আপন ভাই হালিম গাজী বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেয়।

এদিকে আসামী পক্ষ মৃত বারেক গাজীর পরিবারকে মিমাংসার জন্য প্রস্তাব ও প্রলোভন দিতে থাকে। বারেক গাজীর পরিবারকে ম্যানেজ করার জন্য মামলার সাক্ষী বাবুলকে বলতে থাকে। বাবুল ম্যানেজ করতে ব্যর্থ হওয়ায় হত্যা মামলার আসামী ইউনুস হাওলাদার, তার ভাইপো জালাল, ভাগনে আলামিন ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে মারধর করে।
মঠবাড়িয়া থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, ১২ আগস্ট আমি ডিউটি অফিসার ছিলাম। এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়ে অফিসার ইনচার্জকে অবগত করেছি। অভিযোগটি সেকেন্ড অফিসার খতিয়ে দেখে পরবর্তী ব্যবস্থা নিবেন।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি মুহাঃ নুরুল ইসলাম বাদল জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্হা নেওয়া হবে।