এসএসসি পাস করেই অতিরিক্ত এসপি পরিচয়ে জিল্লুরের অভিনব প্রতারণা

56

এসএসসি পাস হলেও প্রতারণায় পিছিয়ে নেই জিল্লুর রহমান জেলিন। প্রতারণার অভিনব কৌশল হিসেবে নিজেকে অ্যাডিশনাল এসপি হিসেবে পরিচয় দিয়ে প্রতারণা শুরু করেন সিরাজগঞ্জের জিল্লু। অ্যাডিশনাল এসপি দাবি করলেও র‌্যাংক ব্যাজ পড়তেন এসপি পদমর্যাদার। সম্প্রতি নিজেকে অ্যাডিশনাল এসপি পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন কৌশলের মাধ্যমে শহীদুল ইসলাম নামে এক ভুক্তভোগীর কাছ থেকে ১০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেয় জিল্লু।

পুলিশের কনস্টেবলে চাকরি দেওয়ার কথা বলে অনেকের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা। রাজধানীতে অ্যাডিশনাল এসপি পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে প্রতারক জিল্লুর রহমান জেলিনকে গ্রেফতারের পর এ তথ্য জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ। আজ মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) মোহাম্মদপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করে সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের ওয়েব বেইজড ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম। গ্রেফতারের পর তার হেফাজত থেকে পুলিশের র‌্যাংক ব্যাজ, পুলিশের লোগো ও মনোগ্রাম সম্বলিত নেভি ব্লু রংয়ের একটি হাফ হাতা শার্ট, নেভি ব্লু রংয়ের পুলিশের একটি ফুল প্যান্ট, পুলিশের মনোগ্রাম সম্বলিত চামড়ার বেল্ট, কালো রংয়ের টিউনিক ক্যাপ একটি, জিল্লুর নামের একটি নেম প্লেট, একটি পুলিশ সার্ভিস টাই, পুলিশ একাডেমি সারদার প্রশিক্ষণ সিডিউলের দুটি পাতা, একটি আইটেল আইটি৫৬১৭ বাটন মোবাইল ও একটি অরেঞ্জ বি৬ মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ও ডিবি-উত্তর) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, প্রতারক জিল্লুর অ্যাডিশনাল এসপি পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন কৌশলে প্রতারণার মাধ্যমে শহীদুল ইসলাম নামের একজনের কাছ থেকে ১০ লাখ ৬৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। ভিকটিম শহিদুল ইসলামের অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ১১ অক্টোবর রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় একটি মামলা করা হয়। মামলার তদন্ত শুরু করে সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের ওয়েব বেইজড ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে প্রতারক জিল্লুকে গ্রেফতার করা হয়।

জিল্লুরের কাছ থেকে পুলিশের পোশাকসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, গ্রেফতার জিল্লুর ১৯৯৯ সালে সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ থানার রায়গঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। তিনি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্যে নিজেকে অ্যাডিশনাল এসপি হিসেবে পরিচয় দিতেন। প্রতারক জিল্লু নিজেকে অ্যাডিশনাল এসপি পরিচয় দিলেও তার কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া র‌্যাংক ব্যাজ ছিল এসপি পদমর্যাদার কর্মকর্তার। ডিবির এ যুগ্ম পুলিশ কমিশনার বলেন, প্রতারক জিল্লু নিজেকে অ্যাডিশনাল এসপি পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন কৌশলের মাধ্যমে ভিকটিম শহীদুল ইসলামের কাছ থেকে ১০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেয়। এছাড়াও পুলিশের কনস্টবলে চাকরি দেওয়ার কথা বলে অনেকের নিকট হতে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।