গোপনে বিয়ে করে স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা, পরিবার জেনে যাওয়ায় স্বামীর অস্বীকার

77

এক বছর আগে তার খালাতো ভাই বাচ্চু মিয়ার (২৮) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে খাদিজার, অতঃপর গোপনে বিয়ে করেন দু’জন। পরে খাদিজা অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর তাদের দু’জনের বিয়ের খবরটি প্রকাশ্যে আসে। ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা খাদিজাকে পারিবারিকভাবে তার পরিবার বিয়ে মেনে নেয়। তবে স্বামী বাচ্চু মিয়া ও তার পরিবার বিয়েটি অস্বীকার করেন। ঘটনাটি ঘটে বরগুনার তালতলীতে।

জানা গেছে, স্ত্রী খাদিজা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। গতকাল বুধবার ভোর রাতে পুলিশ বাচ্চু মিয়াকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বড়বগী ইউনিয়নের ছাতনপাড়া গ্রামের শানু হাওলাদারের কন্যা খাদিজার সঙ্গে এক বছর আগে তার খালাতো ভাই বরগুনা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড ক্রোক এলাকার মন্টু মিয়ার ছেলে বাচ্চু মিয়ার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এক পর্যায় তারা গোপনে স্থানীয় ঈমামের মাধ্যমে বিয়ে করেন। বিয়ের বিষয়টি গোপন রেখে খালাতো ভাই স্বামী বাচ্চু প্রায়ই খাদিজার কাছে এসে থাকতেন। এতে খাদিজা হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। স্ত্রী খাদিজা ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় কোনো উপায় না পেয়ে গত মাসে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ৯/১ ধারায় স্বামী বাচ্চুর বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান মিয়া জানান, ‘আদালতে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ওই ভুক্তভোগী নারী। আদালতের আদেশে মামলাটি এজাহারভুক্ত করে আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছি।’