সিরিয়ায় ইসরাইলের বিমান হামলা, নিহত ৪

50

সিরিয়ার হিমস প্রদেশে ইসরাইলের এক বিমান হামলায় এক সিরীয় সৈন্যসহ চারজন নিহত হয়েছে। বুধবার এই স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৩৪ মিনিটে এই হামলা করা হয় বলে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানার প্রকাশিত খবরে জানানো হয়।খবরে বলা হয়, হিমসের ঐতিহাসিক শহর পালমাইরার কাছে বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে ইসরাইলি বিমানবাহিনী হামলা চালায়।হামলায় এক সিরীয় সৈন্য নিহত ও তিনজন আহত হয়েছে বলে সানার খবরে জানানো হয়।

অন্যদিকে ব্রিটেনভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, পালমাইরার টি ফোর বিমানঘাঁটির কাছে কমিউনিকেশন টাওয়ারসহ বেশ কিছু ইরানি অবস্থান লক্ষ্য করে ইসরাইলের এই হামলায় এক সিরীয় সৈন্য ও তিন ইরানপন্থী যোদ্ধা নিহত হয়েছে। হামলায় একইসাথে তিন সিরীয় সৈন্যসহ সাতজন আহত হয়েছে।

তবে হামলার বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ইসরাইলের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এর আগে গত ৮ অক্টোবর সানার খবরে জানানো হয়, হিমসের গ্রামাঞ্চলে ইসরাইলের এক মিসাইল হামলা রুখে দিয়েছে সিরিয়ার আকাশ প্রতিরক্ষা বাহিনী। ইসরাইলের ওই হামলায় ছয় সিরীয় সৈন্য আহত হয় বলে খবরে জানানো হয়।

অন্যদিকে সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওই হামলায় ইরানপন্থী দুই যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

২০১১ সালে সিরিয়ায় আরব বসন্তের জেরে ক্ষমতাসীন বাশার আল আসাদ সরকার বিরোধীদের ওপর দমন অভিযান শুরু করে। এর প্রতিরোধে আসাদবিরোধী বিক্ষোভকারীরাও অস্ত্র তুলে নেয়।

বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে দমন অভিযানে আসাদকে রাশিয়া, ইরান ও লেবাননের হিজবুল্লাহসহ মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক শিয়া সশস্ত্র সংগঠনগুলো সহায়তা করে। সিরিয়া ভূখণ্ডে চিরশত্রু ইরান ও শিয়া সংগঠনগুলোর উপস্থিতিতে ইসরাইল ক্ষুব্ধ হয়। তখন থেকে বিভিন্ন সময়ে নিয়মিতভাবেই সিরিয়ায় বিমান হামলা চালিয়ে আসছে ইসরাইলি বাহিনী।

বিমান হামলায় প্রায়ই কোনো স্বীকারোক্তি না দিলেও ইসরাইল সিরিয়ায় ইরানকে ঘাঁটি গড়তে দেয়া হবে না বলে ঘোষণা করে আসছে।