মনোনয়ন না দেওয়ায় দল ছাড়লেন আ’লীগ নেতা

260

ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ক্ষুব্ধ এক আওয়ামী লীগ নেতা দল বদল করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলে (জাসদ) যোগদান করেছেন। এর আগেও তিনি মনোনয়ন লাভে ব্যর্থ হয়ে জাসদ থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছিলেন। বাগিয়ে নিয়েছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ।

দল বদল করা ব্যক্তির নাম আব্দুল হামিদ। মঙ্গলবার বিকেলে মালিহাদ ইউনিয়নের আবুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠের এক সভায় তিনি নেতাকর্মীদের নিয়ে জাসদে যোগদান করেন।

এর আগে গত ১০ অক্টোবর কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে আর জড়িত থাকবেন না বলে সভাপতি-সম্পাদক বরাবর পদত্যাগপত্র জমা দেন। পদত্যাগ পত্রে তিনি উল্লেখ করেন, গত সাড়ে পাঁচ বছর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকাকালীন সৎ ও নিষ্ঠার সঙ্গে দল পরিচালনা করে এসেছেন। পারিবারিক ও ব্যক্তিগত কারণে তিনি আর আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকতে চান না।

মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ আলী তার জাসদে যোগদানের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার যোগদান উপলক্ষে মালিহাদ ইউনিয়নের আবুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে একটি সভা হয়। জাসদ নেতা আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে সেখানে জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আবদুল্লাহ প্রধান অতিথি ছিলেন। সভায় মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ আলী ফুলের মালা দিয়ে আবদুল হামিদকে বরণ করে নেন। সেই সঙ্গে তিনি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে জাসদের দলীয় মশাল প্রতীকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন বলেও নিশ্চিত করেন।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে শনিবার বিকেলে মিরপুর উপজেলার ১১ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করে আওয়ামী লীগ। উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আকরাম হোসেন। এতে অভিমান করে পরদিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগ করেন আবদুল হামিদ।

এর আগে তিনি দীর্ঘদিন জাসদের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। ২০১৬ সালের দিকে জাসদ থেকে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছিলেন। দলে যোগদান করে বাগিয়ে নিয়েছিলেন মালিহাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আবদুল হামিদ জানান, মনোনয়ন না দেওয়ায় আওয়ামী লীগের রাজনীতি ছেড়ে আবারও নিজ ঘরে ফিরেছি। মশাল প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব। এর বেশকিছু এই মুহূর্তে বলতে পারছিনা।

মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল আরেফিন বলেন, আওয়ামী লীগ হচ্ছে সমুদ্রের মত বিশাল একটি দল। এ দল থেকে দুই একজন অন্য দলে চলে গেলে এতে দলের কোনো কিছু আসে-যায় না।