Breaking News

বিএনপির শাসনামলে আমরা বাড়িতে ঘুমাতে পারিনি:নানক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি বলেছেন, ‘বিএনপি কখনো গণতন্ত্র চর্চা করে না। তারা মানুষের উপর জুলুম-অত্যাচার করে বেড়ায়। তাদের শাসনামলে আমরা বাড়িতে ঘুমাতে পারিনি, বাড়িঘর জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছিলো। আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য করতে দেননি। আমাদের হাত-পা ভেঙে দিয়েছিলেন। কিন্তু আমাদের নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন ও গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। তার শাসনামলে মির্জা ফখরুল সাহেবেরা নির্বিঘ্নে বাড়িতে ঘুমাচ্ছেন। আমরা তো অমানবিক আচরণ করিনি।’

রোববার (৬ নভেম্বর) বিকেলে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মহানগরীর কাজী নজরুল ইসলাম অডিটোরিয়াম অনুষ্ঠিত এ সভায় নানক আরও বলেন, ‘বর্তমানে আমরা গভীর ষড়যন্ত্র ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে চলছি। আমাদের এসব ষড়যন্ত্রের জাল চিন্নবিন্ন করে বের হয়ে আসতে হবে। এজন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। কেননা আওয়ামী লীগের প্রাণশক্তিই এ দেশের জনগণ। জনগণ ও দলের কর্মীদের সাথে নিয়ে আওয়ামী লীগ সারাজীবন আন্দোলন সংগ্রাম ও লড়াই করে এসেছে।’

সিলেট কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনাল নিয়ে সাবেক এ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সিলেটে ১১০ কোটি টাকায় কেন্দ্রীয় ট্রাক ট্রার্মিনাল নির্মাণ করা হয়েছে। এ টার্মিনাল নির্মাণ করতে প্রয়াত মেয়র বদরুদ্দিন আহমদ কামরান আমার কাছে গিয়েছিলেন। আমি সেটা পাস করি। কিন্তু বর্তমান (আরিফুল হক চৌধুরী) সেই ট্রাক টার্মিনালকে বুলন্টিত করেছেন। জায়গা নিয়ে সমস্যা ছিলো কিন্তু কামরান ভাই সেটার সমাধান করে যেতে পারেন নি। তার পরে কেন এতো সময় লাগে সেই প্রশ্ন তো রাখা যায়।’

দলীয় নেতাকর্মীদের কাজ করার নির্দেশনা দিয়ে তিনি বলেন, ‘সামনে কঠিন সময় আসছে। লড়াই করতে হবে। এতে আমরা ঠিকে থাকবো, ভেবে কাজ না করলে হবে চলবে। এটা ভেবো না। সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির লোকজনের সঙ্গে সর্ম্পক বৃদ্ধি করতে হবে। তাদের নিয়ে কাজ করতে হবে।’

করোনাকালীন সময়ের উদাহরণ টেনে আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এ নেতা বলেন, ‘করোনার সময় দেশের মানুষ খুবই খারাপ সময় পাড় করছিলো। কিন্তু আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা দৃঢ়তার সঙ্গে কাজ করে ছিলেন। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের এদেশের মানুষের জন্য কাজ করতে নির্দেশনায় দিয়েছিলন। দলের নেতাকর্মীরা কাজ করেছেন। মানুষর ধান কেটে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে।’

‘সিলেটেরে উন্নয়নে আওয়ামী লীগ সরকার সবময় ভাবে। সিলেটের ব্যাপারে আমাদের নেত্রীর সু-দৃষ্টি সবসময় আছে। ফলে এ সরকারের আমলে সিলেট এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কাজে পরিণত হয়েছে। ঢাকা-সিলেট ফোর লেন রাস্তা হচ্ছে। এসব উন্নয়ন মানুষের কাছে তোলে ধরতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে সিলেট মহানগর গঠিত। এ ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের কথা শুনেছি। আমরা তাদের কথা জেনেছি। যদি ২৭টি ওয়ার্ডের সম্মেলন শেষ করা যেতো তাহলে মিটিংটা তাৎপর্যমূলক হতো। নতুন সভাপতি-সম্পাদককে নিয়ে যৌথ সভা করতাম।’

‘কর্মীসভার দিকনির্দেশনা, পরামর্শ সবকিছু ঘরের মধ্যে রাখলে হবে না। এসব মানতে হবে।’

Check Also

খুলনায় গণসমাবেশে আসার সময় আ’লীগের হামলায় আহত বিএনপি কর্মী জিকোর মৃত্যু

গত ২২ অক্টোবর বিএনপির খুলনা বিভাগীয় মহাসমাবেশে ট্রলারযোগে আসার সময় আ’লীগের হামলায় আহত শেখ সাজ্জাদুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.