‘বিদেশে রাখা জিয়া পরিবারের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হোক’

6

‘বিদেশে রাখা জিয়া পরিবারের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হোক’   আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রাখা জিয়া পরিবারের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।   আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দোয়েল চত্বর সংলগ্ন তিন নেতার মাজারে জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের উদ্যোগে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ৫৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।   আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সরকারের প্রতি দাবি জানাই- তদন্তের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করে বিদেশে রাখা জিয়া পরিবারের সমস্ত সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হোক এবং সে সম্পদ জনগণের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হোক।   তিনি বলেন, সৌদি আরবে দুর্নীতির তদন্তে সেই দেশসহ বিশ্বের বারোটি দেশে জিয়া পরিবারের সম্পদের হিসেবে বেরিয়ে এসেছে। বিশ্ব গণমাধ্যমসহ দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ বিষয়ে খবর প্রকাশিত হয়েছে।   ড. হাছান বলেন, বিদেশি গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ায় বিএনপির নেতারা চুপসে গেছে। এ বিষয়ে তারা কোন কথা বলছে না। কারণ বিদেশি তদন্তে সরকারের কোনো হাত নেই।   হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বন ও পরিবেশ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান বলেন, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী দেশের মানুষের সেবা করার মহান ব্রত হিসেবে রাজনীতিকে বেছে নিয়েছিলেন।   তিনি বলেন, রাজনীতি এখন আর দেশের মানুষের সেবা করার ব্রত হিসেবে নেই। রাজনীতি এখন অনেকের কাছে প্রতিষ্ঠা লাভের সোপান এবং বিত্ত-বৈভব অর্জনের মাধ্যম। আর জন্য দেশের সামরিক শাসকরাই দায়ী।   ড. হাছান বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করার পর বলেছিলেন, মানি ইজ নো প্রবলেম। তিনিই রাজনীতিতে দৃবৃত্তায়নকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিয়েছেন।   তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া রাজনীতিতে দুবৃত্তায়নের ষোলকলা পূর্ণ করেছেন। আর তার পুত্র বিএনপি নেতা তারেক রহমান এ দৃবৃত্তায়নকে আরো এক ধাপ উপরে নিয়ে গেছেন।   ইত্তেফাক/কেকে