সম্পত্তি লিখে না দেয়ায় সন্তানের হাতে অবরুদ্ধ সাবেক এমপি

8

সম্পত্তি লিখে না দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রংপুরের বিশিষ্ট শিল্পপতি, সাবেক এমপি করিম উদ্দিন ভরসা ও তার দু’ছেলে সিরাজুল ইসলাম ভরসা ও সাইফুল উদ্দিন ভরসা মুখোমুখি অবস্থানে। ওই দুই সন্তানের লোকজন নিজ বাড়িতে করিম উদ্দিন ভরসাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। এ ঘটনায় ওই দুই ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন করিম উদ্দিন ভরসা। গতকাল বুধবার করিম উদ্দিন ভরসা তার হারাগাছ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান। এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, বিশিষ্ট শিল্পপতি সাবেক এমপি করিম উদ্দিন ভরসা ও দু’ছেলে সিরাজুল ইসলাম ভরসা ও সাইফুল উদ্দিন ভরসা দীর্ঘদিন থেকে সব সম্পত্তি তাদের নামে লিখে দেয়ার চাপ ও ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে। করিম উদ্দিনের আরো ৮ ছেলে এবং ২ স্ত্রীর থাকার কারণে তিনি ওই দুই ছেলের নামে সম্পত্তি লিখে দিতে রাজি হননি।

করিম উদ্দিন ভরসা সাংবাদিকদের জানান, সবাই আমার জমির ভাগ পাবে। আমি জীবিত অবস্থায়ই সবাইকে সমানভাবে দিয়ে যাবো। কিন্তু তারা আমার কথায় আশ্বস্ত হতে পারেনি। তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার হারাগাছের বাসভবনে প্রবেশের সব পথ ইটের দেয়াল তুলে বন্ধ করে দেয় এবং ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে আমি ঢাকা থেকে স্ত্রীসহ হারাগাছে এসে এ দৃশ্য দেখে হতভম্ব হয়ে পড়ি। লোকজন দিয়ে ইটের দেয়াল ভেঙে বাড়িতে প্রবেশ করি। এরপর সিরাজুল ও সাইফুল তাদের গুণ্ডাবাহিনী নিয়ে এসে আমাকে ও আমার ছোট স্ত্রী আফলাতুন্নেছা ভরসাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। তারা কাউনিয়া থানা থেকে পুলিশ নিয়ে এসে আমাদের ভয়ভীতি দেখায় এবং পুলিশকেও বাড়ির চারদিকে রেখে দেয়। করিম উদ্দিন ভরসা আরো বলেন, বিষয়টি পুলিশ সুপারকে অবহিত করি এবং তার সাহায্য কামনা করি।

কিন্তু তিনি আমাকে কোনো সাহায্য করেননি বরং উল্টো আমাকে শাসিয়ে দেন। পুলিশ আমার দু’আত্মীয় হায়দার আলী ও স্বপন মিয়াকে কোনো কারণ ছাড়াই আমার বাড়ির পাশ থেকে আটক করে নিয়ে যায়। তিনি বলেন, এর আগে আমি আমার দুই ছেলে সিরাজুল ইসলাম ভরসা ও সাইফুল উদ্দিন ভরসার নামে গত ৯ই নভেম্বর আদালতে মামলা করি।

তারা তাদের নামে আমার জমিজমা লিখে দেয়ার জন্য ভয়ভীতি দেখায়। কিন্তু আমি তাতেও কোনো সাড়া না দেয়ায় তারা আমাকে মারপিট করে গলা ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা চালায়। আমার চিৎকারে লোকজন এসে আমাকে উদ্ধার করে। করিম ভরসা বলেন, তিন স্ত্রীর মধ্যে বড় স্ত্রী মারা গেছেন। আমার মোট ১০ ছেলে এবং ৬ মেয়ে রয়েছে। আমি এখন ছোট স্ত্রী নিয়ে বসবাস করছি। কিন্তু আমার অবাধ্য ছেলে সিরাজুল ইসলাম ভরসা ও সাইফুল উদ্দিন ভরসা আমাকে মেরে ফেলার পাঁয়তারা করছে। এর আগে আমি ওই দু’ছেলেকে কিছু সম্পত্তি লিখে দেই।

কিন্তু তারপরও তারা দুজন আমাকে চাপ দিতে থাকে সব সম্পত্তি তাদের নামে লিখে দিতে। এসব কথা বলতে বলতে কেঁদে ফেলেন করিম উদ্দিন ভরসা। সাংবাদিকদের ভরসার ছোট স্ত্রী আফলাতুন্নেছা ভরসা বলেন, আমরা ওই দু’ছেলে ও তাদের সন্ত্রাসী বাহিনীর দ্বারা অবরুদ্ধ হয়ে রয়েছি। তারা যেকোনো সময় আমাদের মেরে ফেলতে পারে। পুলিশও তাদের পক্ষ নিয়ে আমাদের নানা ধরনের হুমকি দিয়ে আসছে। বর্তমানে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এবিষয়ে পুলিশের ডিআইজিসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহায়তা কামনা করছি।

এসময় করিম উদ্দিন ভরসার অন্য ছেলেরাও উপস্থিত ছিলেন। এব্যাপারে কাউনিয়া থানার ওসি মামুন অর রশিদ জানান, করিম উদ্দিন ভরসার পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আমরা সেখানে গিয়েছিলাম। ভরসা অবরুদ্ধ কিনা সে বিষয়ে তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি।