পাবনায় নিজের নবজাতক সন্তানকে অপহরণ করলো ছাত্রলীগ নেতা

621

পাবনায় একদিনের নবজাতক নিজের সন্তানকে অপহরণের ঘটনায় পাবনায় এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ও বেড়া উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মোস্তফা আহমেদ সাদ্দাম।

প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পাবনার কাশিনাথপুরের ক্রিসেন্ট হসপিটাল নামে একটি প্রাইভেট ক্লিনিক থেকে সাদ্দামের নবজাতক উধাও হয়ে যায়। নবজাতককে অনেক খোঁজাখুঁজির পর হাসপাতালের সিসি ক্যামেরায় ঘটনা ধরা পড়ে। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম নিজেই তার শিশু সন্তানটিকে অপহরণ করেছেন। পরে একই দিন রাতে সাঁথিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা তাকে কাশিনাথপুর বাজার থেকে গ্রেপ্তার করেন।

এ বিষয়ে সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে সাদ্দামের সঙ্গে তার স্ত্রীর সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। গতকাল বৃহস্পতিবার তার স্ত্রী কাশিনাথপুর ক্রিসেন্ট হসপিটালে সন্তান প্রসব করেন। সাদ্দাম চাইছিলেন না তার স্ত্রীর কাছে বড় হোক তার সন্তান। তাই তিনি নিজের এক দিনের নবজাতক শিশু সন্তানকে অপহরণের পথ বেছে নেন। অপহরণের ঘটনা সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। সাদ্দাম তার বাবা হলেও একদিনের শিশুর মাতৃস্নেহে থাকা দরকার। তাকে মাতৃহীন অবস্থায় ৭-৮ ঘণ্টা বাইরে রাখা হয়েছে ক্ষুধার্ত অবস্থায়। যা একটি মস্ত বড় অপরাধ। বিষয়টির উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শিশুটি সারাদিন মাতৃদুগ্ধ না পাওয়ায় তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়ে পড়েছে। শিশুটিকে উদ্ধার করে ক্রিসেন্ট হসপিটাল, কাশিনাথপুরেই আবার অক্সিজেন সার্পোট দিয়ে রাখা হয়েছে।

এমন ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক সমাজকর্মী। তারা ছাত্রলীগ নেতা মো. মোস্তফা আহমেদ সাদ্দামের উপযুক্ত শাস্তি কামনা করেন।

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। সমস্ত বিষয় অনুসন্ধান করে দেখছি আমরা। তবে, সে যে অপরাধটি করেছে সেটা তার একান্ত ব্যক্তিগত সমস্যা থেকে। এ ব্যাপারে ছাত্রলীগের কোনো দায় নেই। তবে, তার এই অপরাধ অবশ্যই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে অবগত করা হবে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ছাত্রলীগে কোনো অপরাধের স্থান নেই।

Loading...