Breaking News

প্রকাশ্যে এল ফারদিন সাথে ঘটনার রাতের চাঞ্চল্যকর সিসিটিভি ফুটেজ(ভিডিও)

সারা দেশে আলোচিত ঘটনাগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফারদিন এর না ফেরার দেশে চলে যাওয়ার ঘটনা। প্রতিনিয়ত এই ঘটনা নানা দিকে মোর নিচ্ছে এবং সে কি কারনে চন পাড়ায় গিয়েছিল তা নিয়েও ধোঁয়াশা রয়েছে। তবে সবকিছু উপেক্ষা করে তার এই ঘটনার সুস্থ তদন্ত করার দাবি জানাচ্ছে অনেকেই।

রূপগঞ্জের চাঁনপাড়া বস্তি এলাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সন্দেহে বুয়েটের ছাত্র ফারদিন নূর পরশকে না ফেরার দেশে পাঠিয়েছে নিষিদ্ধ দ্রব্য ব্যবসায়ীরা। ঘটনার পর গত ৪ নভেম্বর গভীর রাতে তাকে একটি প্রাইভেটকারে করে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেওয়া হয়।

ফারদিন মামলার তদন্তে জড়িত একটি বাহিনীর একাধিক কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সিসিটিভি ফুটেজে ফার্দিনকে সরাতে ব্যবহৃত প্রাইভেটকারটি শনাক্ত হয়েছে।

ঘটনার বেশ কিছু সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজও পৌঁছেছে কাছে। সেগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ঘটনার আগে ও পরে চনপাড়া বস্তির আশপাশে অস্বাভাবিকভাবে সক্রিয় ছিল নিষিদ্ধ দ্রব্য ব্যবসায়ীরা।

বুয়েটের ছাত্র ফারদিন নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তাকে উদ্ধার করে নৌ পুলিশ। বর্তমানে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) মামলাটি তদন্ত করছে। এ ছাড়া র‌্যাবসহ আরও কয়েকটি সংস্থা ছায়া তদন্ত চালাচ্ছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন, ৪ নভেম্বর গভীর রাতে ফারদিনকে না ফেরার দেশে পাঠানো হয়।মোবাইল ফোন নেটওয়ার্কের সূত্র ধরে তার সর্বশেষ অবস্থান শনাক্ত করা হয় রূপগঞ্জের চানপাড়া বস্তি এলাকায়।

চনপাড়া বস্তি এলাকা নিষিদ্ধ দ্রব্য বিক্রির এলাকা হিসেবে পরিচিত। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, ফারদিনকে চাঁনপাড়া বস্তি এলাকার ৪ নম্বর ওয়ার্ডে না ফেরার দেশে পাঠানো হয়েছে । এরপর নিষিদ্ধ দ্রব্য ব্যবসায়ীরা তাকে একটি প্রাইভেটকারে তুলে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেয়।

৪ নভেম্বর দুপুর আড়াই থেকে আড়াইটার মধ্যে ফারদিনকে না ফেরার দেশে পাঠানো হয় । সে সময় ওই এলাকার কয়েকটি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ পাওয়া যায় । এ ঘটনায় জড়িত বেশ কয়েকজনকে ও ফার্দিনকে সরাতে ব্যবহৃত প্রাইভেটকার দেখা গেছে।

এরই মধ্যে এ ঘটনায় জড়িত স্থানীয় দুই নিষিদ্ধ দ্রব্য ব্যবসায়ীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পৃথক দুটি ইউনিট হেফাজতে নিয়েছে। প্রাইভেটকারটিও জব্দ করা হয়েছে

উল্লেখ্য, গত ৪ নভেম্বর নিখোঁজ হয়েছিলেন প্রকৌশল প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফারদিন নূর। এর পর শীতলক্ষা যদি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয় এবং সেই সাথে দেখা গিয়েসে তার এই না ফেরার দেশে চলে যাওয়া নিয়ে নানা ধোঁয়াশা রয়েছে

Check Also

চোখ বেঁধে ও বিবস্ত্র করে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধর

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে সবুজ কাজী (২৬) নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে চোখ বেঁধে বিবস্ত্র …

Leave a Reply

Your email address will not be published.