Breaking News

ম্যারাডোনার বিশ্বকাপ জয়ের বছরই আর্জেন্টিনাকে হারায় বাংলাদেশ

বেজে উঠেছে ফুটবল বিশ্বকাপের ডামাঢোল। আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা, তারপরই বিশ্ববাসী মজে থাকবে ফুটবল বিশ্বকাপে। কাতারে অনুষ্ঠিতব্য দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ খ্যাত এই টুর্নামেন্টের এবারের অন্যতম ফেভারিট দল আর্জেন্টিনা। মেসির নেতৃত্বাধীন দলটি সম্ভাবনা দেখছে বিশ্বকাপ জয়ের।

১৭তম বারের মতো বিশ্বকাপ আসরে নামতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনা। এর আগে ১৬টি আসর খেলে দুই বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আলবিসেলেস্তেরা। ফুটবল বিশ্বে রাজত্ব চালানো দলটি ক্রিকেট খেলছে দীর্ঘদিন ধরে। খেলেছে আইসিসি ট্রফিও।
ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সহযোগী দলটি আইসিসি ট্রফির তিনটি আসরে বাংলাদেশের সঙ্গে মুখোমুখি হয়। তিন আসরের প্রতিটিতেই হারে আর্জেন্টাইনরা। অবশ্য সে সময় বাংলাদেশ দলও ছিল আইসিসির সহযোগী দেশ।

আর্জেন্টিনা তাদের সবশেষ ফুটবল বিশ্বকাপ জিতে ১৯৮৬ সালে। দিয়াগো ম্যারাডোনার নৈপুণ্যে সেবার পশ্চিম জার্মানিকে ৩-২ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয় বিশ্বকাপ ঘরে তোলে আলবিসেলেস্তেরা। ওই বছরই লাতিন আমেরিকার দলটির সঙ্গে ক্রিকেটে সর্বপ্রথম মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ।
ইংল্যান্ডের হেয়ারফোর্ডে আইসিসি ট্রফির ম্যাচে আগে ব্যাট করে ৪৯.২ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১২২ রান করে আর্জেন্টিনা। এতে ৬০ ওভারে বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১২৩ রানের। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩৯.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয় ১৯৮৬ সালের ২৫ জুন। এর চার দিন পর ২৯ জুন বিশ্বকাপ জেতে আর্জেন্টিনা।

এরপর ১৯৯৪ সালে আইসিসি ট্রফিতে আবারও মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ-আর্জেন্টিনা। কেনিয়ার নাইরোবিতে অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচেও ৭ উইকেটে জয় পায় বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করে ১২০ রানে গুটিয়ে যায় আর্জেন্টাইনরা। জবাবে আতহার আলী খানের ব্যাটে চড়ে ৭ উইকেট ও ৮৮ বল হাতে রেখে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পায় লাল-সবুজরা। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন আতহার আলী।

দুই দলের তৃতীয় ও সবশেষ সাক্ষাৎ ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফিতে। নাইমুর রহমান দুর্জয়ের অলরাউন্ডিং নৈপুণ্যে আর্জেন্টিনাকে ৫ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। মালয়েশিয়া কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে আগে ব্যাট করে ১৩৮ রান করে আর্জেন্টিনা। বাংলাদেশের পক্ষে তিনটি করে উইকেট নেন এনামুল হক ও নাইমুর রহমান দুর্জয়।

১৩৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুর্জয়ের ব্যাটিং ঝড়ে ৫ উইকেটের জয় পায় বাংলাদেশ। ৩৭ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৫৩ রান করেন তিনি। এতে ম্যাচসেরা পুরস্কারও ওঠে তার হাতে। ৩৯ রানে অপরাজিত থাকেন আতহার আলী। শেষ পর্যন্ত ২৪তম ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

Check Also

মেসির শটটি ছিল ঘণ্টায় ১২২ কিলোমিটার গতির: ফিফা

আর্জেন্টিনার বিদায়ের বিউগল প্রায় বাজতেই শুরু করে দিয়েছিল। মেক্সিকোর বিপক্ষে গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর অযুত ভক্তকুলও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.