স্বামীর ভাগ্নের সামনে যাওয়া কি জায়েজ?

7
স্টাফ রিপোর্টার:আফগানিস্তানের হেলমন্দ প্রদেশে ন্যাটোর বিমান বাহিনীর ভুল হামলায় ১৭ আফগান পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার প্রদেশটির রাজধানী লস্কর গাহ শহরের কাছে তালেবানদের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় আফগান পুলিশ সদস্যদের ওপর ভুল করে এ বিমান হামলা চালানো হয়। এ ঘটনায় আরো ১৪ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। খবর আল জাজিরা। এর আগে প্রাদেশিক সরকারের মুখপাত্র ওমর যাওয়াক আট জন পুলিশ নিহত হ

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এনটিভির জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

আপনার জিজ্ঞাসার ১৭৫০তম পর্বে ই-মেইল করে পর্দা বজায় রেখে আত্মীয়তার সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার বিষয়ে জানতে চেয়েছেন মুন্নী। অনুলিখনে ছিলেন মনিরুজ্জামান মনু।প্রশ্ন : রাসূল (সা.) বলেছেন, আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিন্নকারী জান্নাতে যাবে না। তাহলে মহিলারা মা, ফুফাতো, খালাতো, চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে কীভাবে আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখবে? স্বামীর ভাগ্নের সামনে যাওয়া কি জায়েজ?

উত্তর : অর্থাৎ আপনার প্রশ্ন, এদের সঙ্গে কীভাবে আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় থাকবে?

সহজ কথা, তাঁদের সঙ্গে সৌজন্য আচরণ করাটাই হচ্ছে আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখা, আর কিছুই না।

তাদের সঙ্গে পর্দা মেইনটেইন করে আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখবেন। আত্মীয়তার সম্পর্কে এটি সত্য নয় যে, তাদের সঙ্গে আপনি একেবারেই পর্দা লঙ্ঘন করে, ইসলাম যে বিধান দিয়েছে সেটা লঙ্ঘন করে তাদের সঙ্গে নিয়মিত ওঠাবসা করবেন।

আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখার ক্ষেত্রেও কিছু বিধিবিধান আছে। পর্দা লঙ্ঘন না করে তাদের সঙ্গে সৌজন্যমূলক আচরণ করা, মেহমান এলে মেহমানদারি করা, সুখ-দুঃখে অংশগ্রহণ করা। সুতরাং সেখানে যদি আপনি ফ্রিমিক্সিং বা অবাধ মেলামেশার দিকে চলে যান, অর্থাৎ একেবারে দহরম-মহরম অবস্থা তৈরি হয়, সেটাকে ইসলাম হারাম করেছে। এটা আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখার নাম নয়।

আর স্বামীর ভাগ্নের সামনে যাওয়ার জায়েজ নেই। কারণ, স্বামীর ভাগ্নে আরো আশঙ্কাজনক অবস্থা।