লঞ্চ থেকে নদীতে পড়ে যাওয়া নারী ১০ ঘণ্টা পর উদ্ধার

IPL ের সকল খেলা  লাইভ দেখু'ন এই লিংকে  rtnbd.net/live

গোসাইরহাট-ঢাকা রুটের ঈগল-১০ নামের তিনতলা লঞ্চ থেকে মেঘনা নদীতে পড়ে গিয়ে জহুরা (৩৮) নামে এক যাত্রী নিখোঁজ হন। ১০ ঘণ্টা পর কোদালপুর ইউনিয়নের ঠাণ্ডাবাজার নামক জায়গায় আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করেন। আহত জহুরার বাড়ি কুচাইপট্টি ইউনিয়নের বসকাঠী গ্রামে। বুধবার রাত ১০টার দিকে কুচাইপট্টি লঞ্চঘাট থেকে স্বামী ও এক সন্তানসহ জহুরা ঈগল-১০ নামের লঞ্চে উঠেন। এ ঘটনায় সন্দেহজনক অভিযোগে তার স্বামী জহিরুল মৃধাকে (৪২) শিকল দিয়ে বেঁধে মারপিট করেন স্থানীয় জনতা। তাদের দাবি জহুরাকে তার স্বামী জহিরুল ধাক্কা দিয়ে লঞ্চ থেকে ফেলে দেয়। কোস্টগার্ড সূত্র জানায়, বুধবার রাতে গোসাইরহাট উপজেলা সদরের পট্টি লঞ্চঘাট থেকে লঞ্চটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। ওই লঞ্চের যাত্রী ছিলেন মাইঝারা গ্রামের জহিরুল ইসলাম, তার স্ত্রী জোহরা বেগম ও তাদের এক ছেলে। রাত সাড়ে ১০টার দিকে জোহরা বেগম লঞ্চ থেকে মেঘনা নদীতে পড়ে যান। তখন চাঁদপুরের হাইমচরের কোস্টগার্ড, নৌপুলিশ ও গোসাইরহাট থানার পুলিশ ওই নারীকে মেঘনা নদীতে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মেঘনা নদীর ঠাণ্ডাবাজার এলাকার একটি চর থেকে জোহরা বেগমকে উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। ওই নারীর পা ভেঙে যাওয়ায় স্বজনরা তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে গেছেন। লঞ্চের কেবিন বয় মো. বিল্লাল জানান, একজন যাত্রী পড়ে যাওয়ার খবর পেয়ে লঞ্চটি অনেকক্ষণ সেখানে নোঙর করে রেখে খোঁজাখুঁজি করা হয়; কিন্তু নিখোঁজের সন্ধান না পেয়ে তারা যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন; তবে ঘটনাস্থলে লঞ্চের লোক রেখে যান। গোসাইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আসলাম সিকদার জানান, পান খেয়ে মাথা ঘুরে লঞ্চ থেকে নদীতে পড়ে যাত্রী নিখোঁজের ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। স্বজন ও এলাকাবাসী নদীতে নৌকা নিয়ে খোঁজাখুঁজি করেন কিন্তু রাতে সন্ধান মেলেনি। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তাকে ঠাণ্ডাবাজার নামক স্থান থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে আনা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক ঢাকায় রেফার্ড করেন। awesome)

Check Also

রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে জি৭, লক্ষ্য জ্বালানি ও বাণিজ্য

রাশিয়ার ওপর বিভিন্ন সময় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ধনী দেশগুলোর জোট জি৭, তবে দেশটি নানাভাবে তা …