বিশ্বকাপে পাক-ভারত দ্বৈরথ হতে পারে নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে!

IPL ের সকল খেলা  লাইভ দেখু'ন এই লিংকে  rtnbd.net/live

আগামী অক্টোবরে ভারতের মাটিতে শুরু হবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। কিন্তু অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে বিশ্বকাপ মাঠে গড়ানোর আগপর্যন্ত চলমান থাকবে ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের মাঝে শর্তারোপ ও দরকষাকষি। ভেন্যু নিয়ে এখন অনিশ্চয়তা কাটেনি। পাকিস্তান শর্ত দিয়েছে ভারত এশিয়া কাপ খেলতে তাদের দেশে না গেলে তারাও বিশ্বকাপ খেলতে ভারতে যাবে না। আসন্ন সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এশিয়া কাপে অংশগ্রহণে অসম্মতি জানিয়েছিল ভারত। কূটনৈতিক বৈরিতার কারণে তারা পাকিস্তানে যেতে রাজি নয়। তার পরিবর্তে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে ম্যাচ আয়োজনের হাইব্রিড মডেল দাঁড় করায় ভারত। কিন্তু ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নয় পাকিস্তানও। তারাও জানিয়ে দেয়— ভারত না এলে তারাও সে দেশে বিশ্বকাপ খেলতে যাবে না। তারাও নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলতে চায়। এর মাঝেই ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইর খববে বলা হয়েছে, পাকিস্তান ভারতে বিশ্বকাপ খেলতে নতুন শর্ত দিয়েছে। নিরপেক্ষ ভেন্যু না হলেও তারা নির্দিষ্ট করে দিয়েছে ভেন্যু। বাবর আজমদের প্রস্তাবিত দুটি ভেন্যু হচ্ছে— কলকাতা ও চেন্নাই। এর আগে ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান কলকাতায় মুখোমুখি হয়। এ ছাড়া কলকাতায় তারা অনেক টুর্নামেন্ট খেলেছে। সে জন্য কলকাতায় খেলতে চায় তারা। কলকাতা ও চেন্নাই— এ দুই শহরের নিরাপত্তা খুব ভালো। তাই শহর দুটিই পাকিস্তানের প্রথম পছন্দ। তবে আইসিসি চায় দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশের খেলায় মানুষের সর্বাধিক আগ্রহ থাকায় তাদের ম্যাচ আহমেদাবাদে আয়োজন করতে। লাখের বেশি ধারণক্ষমতাসম্পন্ন ওই মাঠে সংস্থাটি এই ম্যাচের অধিক মুনাফা তুলতে চায়। ইতোমধ্যে নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামকে তারা ফাইনালের জন্যও বেছে নিয়েছে। এদিকে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে খবর অক্টোবর-নভেম্বরে হতে চলা ওডিআই বিশ্বকাপে হাইপ্রোফাইল ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচ আয়োজনের দায়িত্ব সম্ভবত পেতে চলেছে আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামই। জানা গেছে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) আহমেদাবাদে ম্যাচটি আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে। চলমান আইপিএলের পরই বিশ্বকাপের সময়সূচি ও ভেন্যু ঘোষণা হতে পারে। তবে এ বিষয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। আগামী ৫ অক্টোবর থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত বিশ্বকাপ চলতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। বিশ্বকাপের খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে ভারতের ১২টি শহরে। টানা ৪৬ দিন ধরে চলবে এ প্রতিযোগিতা। ১০ দলের প্রতিযোগিতায় নকআউট পর্বের তিনটি ম্যাচ মিলিয়ে মোট ৪৮টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো হবে ভারতের বেঙ্গালুরু, চেন্নাই, দিল্লি, ধর্মশালা, গুয়াহাটি, হায়দরাবাদ, কলকাতা, লখনৌ, ইন্দোর, রাজকোট ও মুম্বাইয়ে। awesome)

Check Also

রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে জি৭, লক্ষ্য জ্বালানি ও বাণিজ্য

রাশিয়ার ওপর বিভিন্ন সময় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ধনী দেশগুলোর জোট জি৭, তবে দেশটি নানাভাবে তা …