বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

IPL ের সকল খেলা  লাইভ দেখু'ন এই লিংকে  rtnbd.net/live

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণা শুরুর পর থেকে বুধবার ছিল ৯ম দিন। নিয়মানুযায়ী প্রার্থীদের হাতে সময় আছে আর মাত্র ৬ দিন। গাজীপুর শহরে বৃষ্টি হওয়ায় প্রার্থীদের পূর্বনির্ধারিত সময়ে প্রচারণা শুরু করতে একটু দেরি হয়েছে। তারপরও থেমে থাকেননি, মোবাইল ফোনে কল করে বিভিন্ন এলাকার কর্মীদের কাছ থেকে নির্বাচনী মাঠের খোঁজখবর নিয়েছেন। আবার কোনো কোনো প্রার্থী অলসতা ঝেড়ে ফেলে বৃষ্টির মধ্যেই চালিয়ে গেছেন প্রচার। আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান বুধবার দিনব্যাপী সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ি থানা এলাকায় গণসংযোগ ও পথসভায় করেছেন। তিনি সকাল ১০টায় ওই থানার ১২ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার কুদ্দুস মার্কেটে পথসভা থেকে গণসংযোগ শুরুর কথা থাকলেও বৃষ্টির জন্য একটু বিলম্বিত হয়। সভা শেষে অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার কোনাবাড়ির জেলগেট এলাকায় ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচনী অফিসে সভা করেন। পরে তিনি দলীয় কার্যালয় ৮ নম্বর ওয়ার্ড, কোনাবাড়ি কলেজ মাঠ এবং ১০ নম্বর ওয়ার্ডের তেঁতুলতলা এলাকায় পথসভা করেন। অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান বলেন, আমরা একজোট হয়েছি আগামী ২৫ তারিখ যে নির্বাচন হবে তা হবে সম্পূর্ণভাবে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন। যা হবে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য এবং জনগণের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন। এ নির্বাচন সম্পর্কে যারা মিথ্যাচার করছে আমি তাদের জবাব দিতে চাই। তিনি কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করব, আমাদের সেন্টাল কমিটিতে যারা রয়েছেন তাদের অনুরোধ করব, আপনারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঘরে ঘরে গিয়ে আমার সালামটুকু পৌঁছে দেবেন। তারা যেন নৌকা প্রতীকে ভোটটা দেন। জাতীয় পার্টির মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী সাবেক সচিব এমএম নিয়াজ উদ্দিন বৃষ্টি উপেক্ষা করে বুধবার সকালে মহানগরের ভাওয়াল রাজবাড়ি এলাকায় গাজীপুর জজ আদালত থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। এ সময় তিনি উকিল বারের বিভিন্ন হলে গিয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় ও করর্মদন করেন। তিনি সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে সবার কাছে দোয়া ও ভোট প্রার্থনা করেন। এ সময় তার সঙ্গে দলীয় নেতা ও আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকায় স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী জায়েদা খাতুনের (টেবিলঘড়ি) প্রচারে হামলা হয়েছে এবং তাদের কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর হয়েছে। প্রচারের সময় আপনি কি কোনো বাধার সম্মুখীন হয়েছেন বা আপনি নির্বাচনী পরিবেশ কেমন দেখছেন? এমন এক প্রশ্নের জবাবে এমএম নিয়াজ উদ্দিন বলেন, প্রার্থীর গাড়ি ভাংচুর হয়েছে বিষয়টি আমি আপনাদের মুখ থেকে এখনই শুনলাম। তবে আমার প্রচার-প্রচারণার সময় আমার সঙ্গে এমন কিছু হয়নি। আমার কাছে মনে হচ্ছে পরিবেশ এখনো ভালোই আছে। নগরবাসীর উদ্দেশ্যে নিয়াজ উদ্দিন বলেন, আপনাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে যদি আমাকে মেয়র নির্বাচিত করেন তবে আল্লাহর রহমতে আমি সব শ্রেণীর প্রতিনিধিদের নিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশনকে একটি আধুনিক ও সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তুলব। উন্নত শিক্ষার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করব, বেকারত্ব দূরীকরণের জন্য নতুন নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব, বস্তিবাসীর জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করব। নগর পরিকল্পনাবিদদের পরামর্শ নিয়ে একটি পরিকল্পিত সিটি গড়তে যা যা করা দরকার আমি তার সবকিছুই করব ইনশাআল্লাহ। Great)

Check Also

রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে জি৭, লক্ষ্য জ্বালানি ও বাণিজ্য

রাশিয়ার ওপর বিভিন্ন সময় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ধনী দেশগুলোর জোট জি৭, তবে দেশটি নানাভাবে তা …