অপহরণ করে মাদ্রাসাছাত্রীকে ধ'র্ষণ, যুবক গ্রেফতার

IPL ের সকল খেলা  লাইভ দেখু'ন এই লিংকে  rtnbd.net/live

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে অপহরণের পর ১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধ'র্ষণ করেন মোবাশ্বের আহম্মেদ মোবিন (১৯) নামে এক যুবক। তাকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (শজিমেক) ফাঁড়ি পুলিশ গ্রেফতার করে আক্কেলপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জয়পুরহাট জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ধর্ষক মোবিন জেলার আক্কেলপুর উপজেলার পূর্ণগোপীনাথপুর গ্রামের শফিকুল আলমের ছেলে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার আলিমামুদ-পূর্ণ গোপীনাথপুর মাদ্রাসার ১০ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত এক ছাত্রী সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ি থেকে মাদ্রাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়। পথে পূর্ণগোপিনাথপুর তিন মাথার কাছাকাছি পৌঁছলে অভিযুক্ত ধর্ষক তার সহযোগীদের সহায়তায় ওই মেয়েটিকে কৌশলে অপহরণ করে গোপিনাথপুর বাজারের একটি অজ্ঞাত বাড়িতে নিয়ে আটকে রেখে তাকে (মেয়েটিকে) ধ'র্ষণ করে। এতে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে ওই যুবক তাকে প্রথমে বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরের নাহার ক্লিনিক আমি একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে মেয়েটির চিকিৎসা চলাকালীন চিকিৎসক এবং মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যদের ওই ধর্ষক যুবকের আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় তাকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে ঘটনার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করলে তাকে আটক করা হয়। এরপর মেয়েটির পরিবার ও জয়পুরহাটের আক্কেলপুর থানা পুলিশে খবর দিয়ে আটক যুবককে তারা আক্কেলপুর থানা পুলিশে হস্তান্তর করে। এ ব্যাপারে আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বকর সিদ্দীক জানান, এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় ধর্ষক যুবককে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মামলাটির তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ওসি। awesome)

Check Also

রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে জি৭, লক্ষ্য জ্বালানি ও বাণিজ্য

রাশিয়ার ওপর বিভিন্ন সময় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ধনী দেশগুলোর জোট জি৭, তবে দেশটি নানাভাবে তা …