প্রভাবশালীদের ভয়ে ধ,র্ষণের শিকার মেয়েকে নিয়ে লুকিয়ে বাবা

প্রভাবশালীদের ভয়ে ধ,র্ষণের শিকার মেয়েকে নিয়ে লুকিয়ে বাবা

রংপুরে পুলিশ ও প্রভাবশালীদের ভয়ে ধ,র্ষণের শিকার কলেজছাত্রীকে নিয়ে লুকিয়ে বেড়াচ্ছেন বাবা। উল্টো অভিযুক্ত গৃহশিক্ষক ঘুরে বেড়াচ্ছে প্রকাশ্যে। এদিকে অভিযুক্তকে আটক করেও ছেড়ে দেয়ার দায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার ওপর চাপানোর চেষ্টা করছেন ওসি নাজমুল কাদের।

রোববার (০২ ফেব্রুয়ারি) রাতে জোর করে আপস-রফার চেষ্টা ভেস্তে যাওয়ায় বিচার বঞ্চিত মেয়েকে নিয়ে লোকলজ্জার ভয়ে আর বাড়ি ফিরতে পারেননি বাবা। দূরের গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে পরিবারটি। সেখানে আবারও পুলিশ ও প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে ন্যায় বিচারের আকুতি জানিয়েছেন নির্যাতিতা ও তার পরিবার।

নির্যাতিতা নারী বলেন, আমাকে ফোন করে রাস্তায় দেখা করে বলে, চলো তোমাকে বাড়ি এগিয়ে দিয়ে আসি। আমাকে গাড়িতে তুলে অন্য জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে আমার সাথে খারাপ আচরণ করে।

নির্যাতিতা পরিবার জানায়, আমার মেয়ের সাথে যা হয়েছে আমরা তার বিচার চাই।

শিক্ষক হয়ে ছাত্রীর সঙ্গে এমন অপরাধের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছেন এলাকাবাসী।

এ নিয়ে সংবাদ প্রচারের পর বিষয়টি খতিয়ে দেখছে মহানগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। তবে ফোনে ওসি নাজমুল আইনি মারপ্যাঁচে ঘটনার দায় অন্যের ওপর চাপানোর চেষ্টা করেন।

রংপুর মহানগর পুলিশের হারাগাছ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজমুল কাদের বলেন, জোর করে সাক্ষ্য নেয়ার ক্ষমতা আমাদের নেই। এখানে তো আমাদের ওসি স্যার ফারুকও ছিলেন। জোর করে সাক্ষ্য নেয়ার কিছু আছে বলেন?

হারাগাছ ঠাকুরদাস মহল্লার আব্দুস সামাদের ছেলে গৃহশিক্ষক সোহেল রানার বিরুদ্ধে শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) কৌশলে নির্জন স্থানে নিয়ে ওই কলেজছাত্রীকে ধ,র্ষণ যৌ,ন হয়রানি করে। এমন অভিযোগে ওইদিনই পুলিশ বাড়ি থেকে কলেজছাত্রীসহ সোহেল রানাকে আটক করে।

কিন্তু মামলা না নিয়ে পুলিশ তাদের দুই বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান রাকিবুল হাসান ও কাউন্সিলর মাহবুবুর রহমানের হাতে তুলে দেয়। রোববার রাতে শালিসের নামে জোর করে ঘটনাটি মীমাংসার চেষ্টা করলেও তা ভেস্তে যায়।,

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net