জিএফআইয়ের অর্থপাচারের তথ্য সরকারের জানা নেই: মুস্তফা কামাল

জিএফআইয়ের অর্থপাচারের তথ্য সরকারের জানা নেই: মুস্তফা কামাল

স্টাফ রিপোর্টার: অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ফাইল ছবি‘বছরে ১ লাখ কোটি টাকা পাচার হচ্ছে’- যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিগ্রিটি (জিএফআই) প্রতিবেদন প্রকাশের একদিন পরই অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানালেন এ সম্পর্কে সরকার কিছু জানে না।

অর্থমন্ত্রী বলেন, জিএফআইয়ের অর্থপাচার সংক্রান্ত তথ্য আমার কাছে নেই। এ বিষয়টি আমার নলেজে নেই। তাদের (জিএফআই) কাজই হল এ সব তথ্য বের করা, তথ্য বিশ্লেষণ করা। ওদের (জিএফআই) যদি কোনো বক্তব্য থাকে তাহলে তো আমাকে জানাবে! পত্রিকায় এই সব তথ্য দিয়ে কী লাভ? তবে যারা অর্থপাচারের মতো অপরাধে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
বুধবার রাজধানীর শেরেবাংলানগরে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের এনইসি সম্মেলন কক্ষে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ সব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তারা (জিএফআই) আমাকে দেখতে পারে না। সরকারকে দেখতে পারে না। আইডিয়া থেকে অনেক কিছু বলা যায়। তারা আইডিয়ার ওপর এই সংক্রান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে।’
প্রসঙ্গত জিএফআইয়ের সর্বশেষ প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সাত বছরে বাংলাদেশ থেকে ৫ হাজার ২৭০ কোটি ডলার পাচার হয়েছে। স্থানীয় মুদ্রায় যা সাড়ে ৪ লাখ কোটি টাকা, যা দেশের চলতি বছরের (২০১৯-২০২০) জাতীয় বাজেটের প্রায় সমান।

অর্থমন্ত্রী এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘যেহেতু এই বিষয়ে জানি না, এই বিষয়ে কথা বলব না। বিষয়টা আমরা দেখব ও বিশ্লেষণ করব। পরে আপনাদের জানাব। অর্থমন্ত্রী বলেন, তারা এই তথ্য কোথায় পেয়েছে? আমি বলে দিলাম বছরে আমেরিকা থেকে ৩০ হাজার লাখ কোটি টাকা পাচার হয়ে যায়। তাহলেই কী হয়ে গেল?’

সরকারের করণীয় কী জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার তো এই বিষয়ে জানেই না। সরকারকে তো আগে জানতে হবে। বাংলাদেশে তথ্য আসেনি। তথ্য আসলে তো আমি জানতাম। আমি সরকারের একটা অংশ। সরকারের কাছে তথ্য এলে আমি পেতাম। যদি এখান থেকে টাকা চলে যায় তাহলে তো অর্থ মন্ত্রণালয়ের টাকাই যাবে।’

টাকা পাচারে কোনো পদক্ষেপ নেবেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এই বিষয়ে মামলা ছাড়া আর কী করতে পারি? কারো কিছু অপরাধ আসলে মামলা করি। মামলা করলে দুদক থেকে শুরু করে সরকারের অন্যান্য তদন্ত সংস্থা ব্যবস্থা নিয়ে থাকে। কাউকে জেলে পাঠায়, কেউ আবার মুক্তি পায়।’

ব্যবসায়ীরা কানাডায় বাড়ি করছে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। সাংবাদিকদের উদ্দেশে অর্থমন্ত্রী বলেন, আপনারা অর্থমন্ত্রী হলে কী করতেন? আমরাও পদক্ষেপ নিচ্ছি, অনেকে জেলে আছে। তবে সর্বশেষ বিষয়টা কোর্ট দেখেন।’ সূত্র যুগান্তর

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net