চুলা নিয়ে বাকবিতণ্ডা, নিরামিষভোজী শাশুড়ির আত্মহ’ত্যা

38

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় রান্না শেষে চুলার আগুন নেভানোকে কেন্দ্র করে ছেলের বউয়ের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার জেরে শাশুড়ি আত্মহ’ত্যা করেছেন। রোববার (১০ মে) রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ব পদ্মা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, মৃত বিউটি রানী তার স্বামী সন্তোষ, ছেলে সুশান্ত ও ছেলের বউ বিচিত্রা একসঙ্গেই থাকতেন। তবে বিউটি নিরামিষভোজী হওয়ায় তিনি আলাদাভাবে রান্না করে খেতেন। প্রতিদিনের মতো রোববার দুপুরে রান্না করে শাশুড়িকে খুঁজে না পেয়ে চুলার আগুন নিভিয়ে দেন বিচিত্রা। কিছুক্ষণ পর বিউটি রানী রান্না করতে এসে চুলা নেভানো দেখে বিচিত্রার সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন।

একপর্যায়ে বিউটি এ ঘটনা তার স্বামী সন্তোষকে জানান। কিন্তু সন্তোষ ছেলের বউয়ের পক্ষ নিয়ে বিউটিকে পুনরায় চুলা জ্বালিয়ে রান্না করতে বলেন। এতে অভিমান করে রান্না না করেই ঘরে গিয়ে শুয়ে পড়েন বিউটি।

পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে পরিবারের লোকজন জানতে পারেন বিউটি রানী কীটনাশক পান করে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তখন দ্রুত তাকে পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১টার দিকে শাশুড়ি বিউটির মৃত্যু হয়।

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে অভিমান করে বিউটি রানী কীটনাশক খেয়ে আত্মহ’ত্যা করেছে। লাশের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।’

Loading...