স্কুলমাঠে কোমর পানিতে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন

224

ভবদহে টিআরএম চালু, আমডাঙ্গা খাল সংস্কার, হরি, শ্রী, টেকা, মুক্তেশ্বরী নদীর সাথে ভৈরবের সংযোগ, ২১ ও ৯ ভোন্টের মাঝ দিয়ে সরাসরি নদী সংযোগ, নদী ও খালের উপর সকল প্রকার পাটা-বাঁধ অপসারণের দাবিতে পানির মধ্যে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেছে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয়রা।

ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির উদ্যোগে ব্যতিক্রমী এই কর্মসূচিতে ভবদহ অঞ্চলের শত শত নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করে।

সোমবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অভনগর উপজেলা মশিয়াহাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জলমগ্ন মাঠে ভুক্তভোগী নারী-পুরুষ তাদের দাবি দাওয়া সম্বলিত ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে অবস্থান নেয়।
এ সময় তারা বলেন, গত তিন মাস ধরে ইতিমধ্যে তলিয়ে গেছে হাজার হাজার হেক্টর ফসলের ক্ষেত, মাছের ঘের। পানি উঠে এসেছে ঘর-বাড়িতে। এ অবস্থায় চরম দুর্ভোগে রয়েছেন জেলার ৪০ গ্রামের কয়েক লাখ মানুষ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ভবদহের সমস্যা প্রায় ৬০ বছরের। ভবদহের জলাবদ্ধতা নিরসনের নামে জনপ্রতিনিধি ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা লুটপাট ও বাণিজ্য করে চলেছে। স্থানীয়রা এর থেকে পরিত্রাণ পেতে স্থায়ী সমাধান চান।

এজন্য সেনাবাহিনীর মাধ্যমে পরিকল্পিত জোয়ারাধার প্রকল্প বাস্তবায়ন ও পানি বের হওয়ার অন্যতম পথ আমযাঙ্গা খালটি ফের খননের মাধ্যমে প্রশস্ত করার দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।

পানির ভেতর মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির উপদেষ্টা ইকবাল কবির জাহিদ, সংগঠনের আহ্বায়ক রণজিৎ বাওয়ালী, সদস্যসচিব অধ্যাপক চৈতন্য পাল, মুক্তিযোদ্ধা গাজী আব্দুল হামিদ, মফিজুর রহমান নান্নু, প্রদীপ হালদার,

কার্তিক বকশী, অনিল বিশ্বাস, শিবুপদ বিশ্বাস, মানব মন্ডল, কনৌজ বিশ্বাস, উত্তম কুমার মন্ডল, শেখর বিশ্বাস, রাজু আহমেদ, পার্থ প্রতিম বৈরাগী, অনির্বাণ ধর ও সুকৃতি রায় প্রমুখ।