Breaking News

সেই প্রশ্নটি করেছেন শিক্ষক প্রশান্ত বাংলা পরীক্ষার

শিক্ষক প্রশান্ত ‍কুমার পাল এইচএসসির বাংলা প্রথম পত্রের ‘সাম্প্রদায়িক’ প্রশ্নটি করেছেন। তিনি ঝিনাইদহের ডা: সাইফুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজের বাংলার শিক্ষক। রোববার (৬ নভেম্বর) থেকে শুরু হওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের বাংলা প্রথম পত্র বিষয়ের প্রশ্নপত্রে সাম্প্রদায়িক উসকানির উপাদান রয়েছে।

এ পত্রের একটি প্রশ্ন হলো-‘নেপাল ও গোপাল দুই ভাই। জমি নিয়ে বিরোধ তাদের দীর্ঘদিন। অনেক সালিশ-বিচার করেও কেউ তাদের বিরোধ মেটাতে পারেনি। কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। এখন জমির ভাগ বণ্টন নিয়ে মামলা চলছে আদালতে। ছোট ভাই

নেপাল বড় ভাইকে শায়েস্তা করতে আব্দুল নামে এক মুসলমানের কাছে ভিটের জমির এক অংশ বিক্রি করে। আব্দুল সেখানে বাড়ি বানিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করে। কোরবানির ঈদে সে নেপালের বাড়ির সামনে গরু কোরবানি দেয়। এই ঘটনায় নেপালের মন ভেঙ্গে যায়। কিছুদিন পর কাউকে কিছু না বলে জমি-জায়গা ফেলে সপরিবারে ভারতে চলে যায় সে।’

শিক্ষা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, প্রশ্ন প্রণয়নকারী ঝিনাইদহের মহেশপুরের প্রশান্ত ‍কুমার পাল তিনি ঝিনাইদহের ডা: সাইফুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজের বাংলার শিক্ষক। যশোর শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তাদের ঘুষ দিয়ে তিনি প্রশ্নকর্তা হয়েছেন মর্মে অভিযোগ আগে থেকেই ছিলো। শিক্ষা প্রশাসনের একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

সাম্প্রদায়িক উপাদানযুক্ত প্রশ্নপত্রের চারজন মডারেটরের একজন নড়াইলের সেই মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের সহকারি অধ্যাপক শ্যামল কুমার ঘোষ। আরেকজন কুষ্টিয়া ভেড়ামারা ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক রেজাউল করিম। বাকী দুজন নড়াইলের সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের সহযোগী অধ্যাপক সৈয়দ তাজউদ্দিন শাওন, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ শফিকুর রহমান। তারা বিসিএস সধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা।

Check Also

ড. ইউনুসরা শান্তি পুরস্কার পাইছে কিন্তু সমবায়ীদের শান্তি দেয় নাই: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, যে দলের চেয়ারম‍্যান বা প্রধান এতিমের টাকা আত্মসাৎ করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.