সন্দ্বীপে ইভিএমে ভোট গ্রহণের দাবি ৩ প্রার্থীর, সিইসিকে চিঠি

IPL ের সকল খেলা  লাইভ দেখু'ন এই লিংকে  rtnbd.net/live

সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে ৪ প্রার্থীর মধ্যে ৩ জন ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণের জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে আবেদন করেছেন। তারা হলেন- নাগরিক কমিটির প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, জাসদ সমর্থিত আবুল কাশেম মাহমুদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মশিউর রহমান বেলাল। গত ৩ মে তারা নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পৃথক পৃথক এই আবেদন জমা দেন। ইভিএমে ভোট গ্রহণের পাশাপাশি নির্বাচন চলাকালীন সময়ে বাড়তি নিরাপত্তা জোরদারেরও দাবি জানান তারা। আবেদনপত্রে তারা বলেন, সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও প্রহসনমূলক করার জন্য একটি মহল বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। ষড়যন্ত্রকারী ওই মহলের প্ররোচনায় সন্দ্বীপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সম্রাট খীসা তফসিল ঘোষণার পর তড়িঘড়ি করে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ না করতে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে তিনি যুক্তি দেখিয়েছেন, সন্দ্বীপে বিদ্যুৎ নেই। রাস্তাঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ। এখানে ইভিএম মেশিন আনা-নেওয়া করা সম্ভব নয়। তিন প্রার্থী তাদের চিঠিতে ইউএনও’র এসব তথ্য সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন। সন্দ্বীপে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। ৭৯টি কেন্দ্রের মধ্যে মাত্র ১১টিতে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। তবে দ্রুততম সময়ের মধ্যে এসব কেন্দ্রে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান সম্ভব বলে সন্দ্বীপ বিদ্যুৎ অফিস জানিয়েছে। এ ছাড়া সন্দ্বীপে যোগাযোগ ব্যবস্থা বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে উন্নত। এখানে পর্যাপ্ত ট্রাক ও অন্যান্য যানবাহন রয়েছে। নদীপথেও যাতায়াত ব্যবস্থা অনেক উন্নত। ইভিএম মেশিনে ভোট গ্রহণে কোনো সমস্যা হবে না। তিন প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন, ‘ইভিএমে ভোট গ্রহণ না করলে ক্ষমতাসীন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নগ্ন হস্তক্ষেপে পুরো নির্বাচন ব্যবস্থা প্রশ্নবিদ্ধ হবে। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মাইনউদ্দিন মিশনের পক্ষে সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন প্রার্থীর কর্মী, সমর্থক, ভোটারদের ওপর হামলা ও ভয়ভীতি প্রদর্শন শুরু করেছে।’ Great)

Check Also

এরদোগানবিরোধী প্রচারণায় ব্রিটিশ গণমাধ্যম ইকোনোমিস্ট

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্ট নির্বাচনের ১০ দিন আগে প্রকাশিত ব্রিটিশ সাপ্তাহিক পত্রিকা ইকোনোমিস্ট কভার পেজসহ …