ডিজিটাল অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষ দেশগুলির মধ্যে বাংলাদেশ

ডিজিটাল অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষ দেশগুলির মধ্যে বাংলাদেশ

হুয়াওয়ে গ্লোবাল কানেকটিভিটি সূচকে (জিসিআই) ২০১৮ অনুযায়ী, গত চার বছরে ডিজিটাল অর্থনীতিতে ‘উন্নতি ও অসাধারণ বিকাশের’ দিক থেকে বাংলাদেশ শীর্ষ চারটি দেশের মধ্যে স্থান পেয়েছে।
বুধবার হুয়াওয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের পাশাপাশি ইউক্রেন, দক্ষিণ আফ্রিকা ও আলজেরিয়া সহ বিশ্বের ডিজিটাল অর্থনীতির অগ্রগতির মূল্যায়ন করে এই সূচকটি প্রস্তুত করা হয়েছে।

জিসিআই হুয়াওয়ের ডিজিটাল বিকাশের উপর প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদন যা আইসিটি উদ্ভাবন এবং আইসিটি অ্যাপ্লিকেশনগুলি জাতীয় অর্থনীতিগুলিকে বিকাশে সহায়তা করতে পারে এবং শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়, থিঙ্ক ট্যাঙ্কস এবং শিল্প সমিতিগুলির সাথে ডিজিটাল অর্থনীতিতে খোলামেলা গবেষণা পরিচালনা করে on
জিসিআই-এর লক্ষ্য হ'ল দেশ ও শিল্পকে ডিজিটাল রূপান্তর সম্পর্কিত অনুমোদনমূলক, উদ্দেশ্যমূলক, পরিমাণযুক্ত মূল্যায়ন এবং সুপারিশ প্রদান।

২০১৪ সাল থেকে হুয়াওয়ে প্রতি বছর সরবরাহ, চাহিদা, অভিজ্ঞতা এবং সম্ভাবনার চারটি স্তম্ভের অধীনে ৪০ টি সূচকের ভিত্তিতে একটি জিসিআই প্রতিবেদন প্রকাশ করছে।
জিসিআই 2019 এর প্রতিবেদনে স্টার্টার জাতি হিসাবে বলা হয়েছে, পাঁচ বছরেরও কম সময়ে ‘বাংলাদেশ তার জিসিআই স্কোরকে সাত পয়েন্ট বাড়িয়েছে’।

২০১৫ সাল থেকে বাংলাদেশে মোবাইলের সাবস্ক্রিপশন প্রবেশের হার per শতাংশ থেকে বেড়ে ৪১ শতাংশে এবং স্মার্ট ফোন প্রবেশের হার per শতাংশ থেকে বেড়ে ৩৪ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।
মোবাইল সাবস্ক্রিপশন ছাড়াও, দেশের ফাইবার টু হোম (এফটিটিএইচ) কভারেজ এবং ফিক্সড ব্রডব্যান্ড বেসও উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইন্টেলিজেন্ট কানেক্টিভিটি বাংলাদেশ সহ সকল দেশের জন্য নতুন জিডিপি প্রবৃদ্ধির আরেকটি সম্ভাব্য অনুঘটক, প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
এখন এর ষষ্ঠ বছরে, জিসিআই 2019 ব্রডব্যান্ড, ক্লাউড এবং আইওটি পাশাপাশি ‘বুদ্ধিমান সংযোগ’ চালিত চারটি মূল দক্ষতার মধ্যে একজনের মধ্যে এআইয়ের ভূমিকা তুলে ধরে ights চারটিই অর্থনৈতিক বিকাশের জন্য উল্লেখযোগ্য অনুঘটক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net