জাতিগত লেখকরা রাঙ্গামাটিতে সম্মেলন করেছেন

জাতিগত লেখকরা রাঙ্গামাটিতে সম্মেলন করেছেন

শুক্রবার রানাগামাটি জাতিগত সংখ্যালঘু সংস্কৃতি ইনস্টিটিউটে পার্বত্যা চট্টগ্রাম আদিবাসী লেখক ফোরামের পার্বতী চট্টগ্রাম আদিবাসী লেখক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। – নতুন বয়স ফটোশুক্রবার রাঙ্গামাটির খুদ্রো নিগ্রোস্টি কালচারাল ইনস্টিটিউটে ‘আমাদের ভাষায় আমাদের সাহিত্য’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ‘সিএইচটি আদিবাসী লেখক’ ফোরামের তৃতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
চাকমা সার্কেলের প্রধান রাজা দেবাশীষ রায় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন, প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কবি ও প্রবীণ সাংবাদিক হাসান হাফিজ।

অন্যান্য বক্তাদের মধ্যে অধ্যাপক মং এইচএসএ নু চৌধুরী, লেখক ও শিক্ষাবিদ প্রভাংশু ত্রিপুরা এবং কেসামং মারমা উপস্থিত ছিলেন।
বক্তারা সিএইচটি-র বিভিন্ন নৃগোষ্ঠীর ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংরক্ষণ ও অনুশীলনে সবার এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
হাসান হাফিজ বলেন, প্রযুক্তি স্থানীয় লেখকদের রচনা প্রকাশের আধুনিক মাধ্যম হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে।
তিনি ভাষা ও সংস্কৃতির বিকাশে বহুভাষিক সমাজ গঠনের প্রস্তাব করেছিলেন। তিনি সরকার ও টিভি চ্যানেলগুলিকে সিএইচটি-র সমৃদ্ধ সংস্কৃতি সম্পর্কিত কর্মসূচি উত্পাদন করার আহ্বান জানান।

রাজা দেবাশীষ রায় বলেছিলেন বাংলাদেশে এখন বাকস্বাধীনতা নেই। তিনি বলেন, দমন-নিপীড়নের যেই উপস্থিতি থাকুক না কেন, একটি সুন্দর সমাজের জন্য মানুষের স্বপ্ন থাকে এবং সেই স্বপ্নগুলি সমাজকে পরিবর্তন করতে পারে।
তিনি বর্তমানে সিএইচটি-তে বিদ্যমান বিকৃত নামগুলি পরিবর্তন করার প্রয়োজনীয়তা প্রকাশ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন যে সিএইচটি জুড়ে জায়গাগুলির বিকৃত নামগুলি এর মূল নামে পরিবর্তন করার যে কোনও উদ্যোগকে তিনি সমর্থন করবেন।
মৃত্তিকা চাকমার সভাপতি ও আনন্দ জ্যোতি চাকমা সাধারণ সম্পাদক হয়ে আলোচনার শেষে লেখক ফোরামের একটি নতুন ৩১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।
অনুষ্ঠান শেষে হাসান হাফিজসহ অনেক অংশগ্রহণকারীদের কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠিত হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 RTNBD.net