তৃণমূল বিএনপি ভোটে যেতে চায়, বাধা কেন্দ্র

IPL ের সকল খেলা  লাইভ দেখু'ন এই লিংকে  rtnbd.net/live

খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ইচ্ছা স্থানীয় বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাদের। তবে এ ক্ষেত্রে বাগড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত।আগামী ১২ জুন খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। এ নিয়ে অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীদের মতো বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মধ্যেও আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। তাঁরা মনে করছেন, এই নির্বাচনে অংশ নেওয়া উচিত দলটির। তবে কেন্দ্রীয় বিএনপি যে সিদ্ধান্ত নেবে, তা তাঁরা মেনে নেবেন।খুলনা সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠার পর ১৯৯৪-২০১৮ সাল পর্যন্ত নির্বাচনী ফলাফলে বিএনপির সাফল্য চোখে পড়ার মতো। তিনবার মেয়র পদে জয়ী হয়েছেন বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থীরা। দুবার জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। সবশেষ ২০১৮ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে জিততে না পারলেও ৩১টি সাধারণ ওয়ার্ডের ১৩টিতে আওয়ামী লীগ, ১০টিতে বিএনপি ও ৮টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়ী হন।আসন্ন নির্বাচনে অংশ নেওয়ার পক্ষে খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুরাদ। তিনি বলেন, খুলনা বিএনপির ঘাঁটি।বিএনপির স্থানীয় নেতারাও তাঁর মতোই বলছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় বিএনপির কয়েকজন নেতা বলেন, ভবিষ্যতে যেকোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হলে খুলনা থেকে বিএনপিই বিজয়ী হবে। সামনে কেসিসির নির্বাচনে অংশ নিলে দল সুসংগঠিত হবে। কর্মীরা হবেন ঐক্যবদ্ধ। তাই তাঁরা নির্বাচনের পক্ষে।  এ বিষয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, আন্দোলনের একটি প্রক্রিয়া হচ্ছে নির্বাচনে অংশ নেওয়া। নির্বাচন ছাড়া কর্মীদের ‘মোবিলাইজ’ করা সম্ভব নয়। বিএনপির সাবেক এই নেতার মতে, নির্বাচনে অংশ নেওয়া উচিত দলটির।নজরুল ইসলাম মঞ্জু আরও বলেন, যেহেতু দলের সিদ্ধান্ত নির্বাচনে অংশ না নেওয়া, তাই সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় নেই দলটির সম্ভাব্য প্রার্থীদের। এদিকে বিএনপির দায়িত্বশীল পর্যায়ের নেতারা বলছেন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কোনো নির্বাচনে নেই দলটি।এ ব্যাপারে খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক শফিকুল আলম মনা বলেন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে না।অপর দিকে মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব শফিকুল আলম তুহিন বলেন, বর্তমান সরকার বারবার প্রমাণ করেছে তাদের অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই বিএনপি বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই কেবল নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। amazing)

Check Also

গাজীপুর সিটি নির্বাচন: লাঙলের প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা

গাজীপুর সিটি করপোরেশনকে একটি পরিকল্পিত নগর হিসাবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করে ইশতেহার ঘোষণা করেছেন সিটি …

2 comments

  1. ভোটের নাম নিলে তাকে দল থেকে বাদ দেয়া হোক।

  2. সঠিক কথা না